সাবধান! এই ভাবে চা খাওয়ার অভ্যাস ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায় বহুগুণ, বলছে নতুন গবেষণা

শরীরের অবসন্ন ভাব কাটাতে চায়ের জুড়ি মেলা ভার! ক্লান্ত শরীরে ধোঁয়া ওঠা চায়ে চুমুক দিতে কে না ভালবাসেন! অনেককে দেখা যায় চুলা থেকে কাপে নিয়েই চা খেতে থাকেন, কিন্তু জানেন কি অতিরিক্ত গরম চা খাওয়ার অভ্যাস আপনার অজান্তেই ক্যান্সারের ঝুঁকি বহুগুণ বাড়িয়ে দিচ্ছে! এমনটাই বলছেন ক্যান্সার বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞদের মতে, শুধুমাত্র গরম চা বা কফিই নয়, যে কোন ধরনের পানীয় অতিরিক্ত গরম অবস্থায় পান করলে তা আমাদের খাদ্যনালীর অভ্যন্তরের আস্তরণের মারাত্মক ক্ষতি করে। ফলে খাদ্যনালীর কোষগুলো ক্রমাগতভাবে নতুন করে জন্মানোর প্রয়োজন হয়। খাদ্যনালীতে এই মেরামতির পর্যায়েই কোষের ক্যান্সারজনিত রূপান্তর ঘটে যা খাদ্যনালীর ক্যান্সারের দিকে পরিচালিত করে।

এ ছাড়াও অতিরিক্ত গরম পানীয় খাদ্যনালীর স্পিঙ্কটার প্রক্রিয়াকে শিথিল করতে পারে এবং অ্যাসিড রিফ্লাক্সের দিকে পরিচালিত করে যা গ্যাস্ট্রোসফেজিয়াল জংশন বা পাচনতন্ত্রের ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে।

ক্যান্সার গবেষণার আন্তর্জাতিক সংস্থা (আইএআরসি)-র রিপোর্ট অনুযায়ী, ১৪৯ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা ৬৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি গরম পানীয় লেভেল ২এ কার্সিনোজেনের সমতুল্য ক্ষতিকর, যা ক্যান্সারের অন্যতম কারণ হতে পারে।

আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির একদল গবেষক তাঁদের রিপোর্টে দাবি করেছেন, অতিরিক্ত গরম চা খাওয়ার অভ্যাস কণ্ঠনালীর বা গলার ক্যান্সারের ঝুঁকি প্রায় ৯০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়িয়ে দিতে পারে! উত্তর-পূর্ব ইরানের প্রায় ৫০ হাজার মানুষের উপর গবেষণা চালিয়ে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন তাঁরা। প্রতিবছর ৪ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয় কণ্ঠনালীর ক্যান্সারে৷ গরম চা বা কফি ছাড়াও মাত্রাতিরিক্ত ধূমপান, মদ্যপানের অভ্যাস এই ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয় অনেকটাই।

ভারতের ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডা. শুভদীপ চক্রবর্তী জানান, শুধু ইরানেই নয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের দেশগুলোতে বেশির ভাগ মানুষের অভ্যাস ৬৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি গরম চা পান করা। তাঁর মতে, ৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কম উষ্ণ চা খাওয়াটাই স্বাস্থ্যের পক্ষে উপযুক্ত। এই চেয়ে বেশি গরম চা খেলে বাড়বে ক্যান্সারের ঝুঁকি।

তাই তেষ্টা মেটাতে বা ক্লান্তি কাটাতে চা, কফি অবশ্যই খাবেন। তবে খেয়াল রাখবেন তা যেন খুব গরম না হয়।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress