আপনার ওজন হ্রাস করতে কলার খোসার কিছু বিশেষ ব্যবহার, জেনেনিন

কলা এমন একটি ফল যা প্রতি মরশুমে সহজেই পাওয়া যায়। কলা গাছটি ক্রান্তীয় জলবায়ুতে বৃদ্ধি পায়। দেশের অনেক জায়গায় কলা চাষ হয়। ভারতে এই ফলটি প্রাচীন কাল থেকেই বিকাশ লাভ করে আসছে। এটি সনাতন ধর্মীয় গ্রন্থে বর্ণিত হয়েছে। যদিও কলা সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেন ভগবান বিষ্ণু। এ জন্য বৃহস্পতিবার কলা গাছের পুজো করা হয়। বিষ্ণু এই উদ্ভিদে বাস করেন।

আজও ভারতে লোকেরা কলা পাতায় খাবার খান। কলা স্বাস্থ্য এবং সৌন্দর্য উভয়ের জন্যই উপকারী। শরীর সেবন থেকে দ্রুত শক্তি পায়। কলা খেলে ওজনও বাড়ে। পাতলা লোকের জন্য কলা ওষুধের চেয়ে কম নয়। এ ছাড়া কলার খোসা স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। এটি বর্ধমান ওজন নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। আপনি যদি এ সম্পর্কে না জানেন তবে আসুন জেনে নেওয়া যাক কীভাবে কলার খোসা ওজন কমাতে সহায়ক :

এনডিপুব্লিশার.ইনে প্রকাশিত একটি নিবন্ধ অনুসারে, কলার খোসা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। এর ব্যবহার স্বাস্থ্যের উপর অনুকূল প্রভাব ফেলে। এটি যে কোনও আকারে খাওয়া যেতে পারে। বাজারে কলা খোসার গুঁড়ো পাওয়া যায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, কলাের খোসা যদি নিয়মিত খাওয়া হয় তবে বাড়তি ওজন নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এতে উপস্থিত পুষ্টি ওজন কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ফল খাওয়ার চেয়ে খোসা ছাড়িয়ে শরীরে ১০ শতাংশ বেশি ফাইবার পাওয়া যায়। পাকা কলার খোসার মধ্যে রয়েছে ট্রাইপ্টোফান (প্রয়োজনীয় অ্যামিনো অ্যাসিড) যা অন্ত্রকে সুস্থ রাখে। এছাড়াও এতে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট পাওয়া যায়। এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও শক্তিশালী করে। এটিতে ভিটামিন-সি, ভিটামিন-বি ৬, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে যা স্বাস্থ্য এবং সৌন্দর্য উভয়েরই জন্য উৎসাহ বিশেষ। ফাইবার হজম সিস্টেমকে শক্তিশালী করে।

ব্যবহারবিধি : অনেক গবেষণায়, কলার খোসা সুপারফুড হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে। তবে এটি নেওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া ভাল। আপনি কলার খোসা সিদ্ধ করে নাস্তা হিসাবে খেতে পারেন। এছাড়াও আপনি কাঁচা (পাকা কলার খোসা) ভাজতে পারেন। এর জন্য, কলাের খোসাগুলি ভাল করে ধুয়ে নেওয়া এবং সেগুলি গ্রহণ করা জরুরী।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress