বেগুন খেলে ডায়াবেটিস রোগীদের কী হয়? দেখেনিন একঝলকে

ডায়াবেটিসের সমস্যা এখন ঘরে ঘরে। নিয়মতান্ত্রিক জীবনযাপনের মাধ্যমে এই রোগ নিয়ন্ত্রণ করা যায় সহজেই। এজন্য শরীরচর্চার পাশাপাশি সঠিক খাদ্যাভ্যাস জরুরি।

বিভিন্ন ধরনের খাবার আছে যা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য স্বাস্থ্যকর নয়। এ কারণে ডায়েট থেকে বাদ দিতে অনেক খাবার। বিশেষ করে প্রক্রিয়াজাতকরণ খাবার ও মিষ্টি খাবার একেবারেই এড়িয়ে যেতে হয়।

একইভাবে অনেক ধরনের খাবার আছে যা খেতে মানা নেই ডায়াবেটিস রোগীদের। তেমনই এক সবজি হলো বেগুন। রক্তে কোলেস্টরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে এই সবজি।

শরীরের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণেও এটি বিশেষ ভূমিকা রাখে। আবার বেগুন হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। বেগুনে থাকা পটাশিয়াম শরীরের পানিশূন্যতা দূর করে যা রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, কম ক্যালোরি ও কার্বোহাইড্রেটযুক্ত এই সবজিতে শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় সব পুষ্টি উপাদান আছে। আপনি যদি ডায়াবেটিসের রোগী হন তাহলে আপনার ডায়েটে এই সবজি অবশ্যই যোগ করুন।ক

এনসিবিআইতে প্রকাশিত এক রিপোর্ট অনুসারে, বেগুনে খুব কম গ্লাইসেমিক সূচক আছে। যা রক্তে শর্করাকে বাড়ায় না। এটি একটি স্টার্কবিহীন খাবার। এর গ্লাইসেমিক ইনডেক্স ১৫। ফলে ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এটি উপকারী। কম গ্লাইসেমিক সূচকযুক্ত খাবারগুলো গ্লুকোজের মাত্রা বাড়ায় না ও ধীরে ধীরে শোষিত হয়।

বেগুনে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন, মিনারেল ও দ্রবণীয় ফাইবার আছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো এতে ক্যালোরি ও চর্বি অনেক কম। এতে নিয়াসিন, ম্যাঙ্গানিজ ও কপারের মতো অল্প সংখ্যক অন্যান্য পুষ্টিও আছে।

বেগুনে ভিটামিন এ ও সি এর মতো উচ্চ অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে, যা কোষের ক্ষতি থেকে রক্ষা করে। ক্যালোরি কম হওয়ায় এটি ওজন কমানোর জন্য একটি দুর্দান্ত খাবার।

ফাইবার সমৃদ্ধ এই সবজি কোষ্ঠকাঠিন্যও সারায়। বেগুনে থাকা ফোলেট রক্ত স্বল্পতা দূর করে। এতে উৎপন্ন গ্লাইকোঅ্যালকালয়েড ত্বকের ক্যানসারও প্রতিরোধ করে।

তাই ডায়াবেটিস রোগীরা নিশ্চিন্তে ডায়েটে রাখতে পারেন বেগুনের নানা পদ। তবে অনেকেরই বেগুনে অ্যালার্জি থাকে। তারা চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া বেগুন খাবেন না।rs

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress