খাওয়া -দাওয়াজীবনযাপনস্বাস্থ্য ও ফিটনেসস্বাস্থ্য পরামর্শ

রোজ সকালে নিয়মিত ভেজানো কিসমিস খেলে মিলবে যেসব উপকারিতা, জেনেনিন

কিসমিস হলো পুষ্টির ভান্ডার। কিসমিসের গুণকীর্তন আমরা অনেক শুনেছি বা জানি। রাতভর জলে ভিজিয়ে রাখলে কিসমিসে থাকা বিভিন্ন পুষ্টি উপাদান সহজেই দ্রবণীয় হয়ে যায় যা আমাদের শরীর আরো সহজে নিতে বা শোষণ করতে পারে। তাই সকালে খালি পেটে ভেজানো কিসমিসসহ জল খেলে মিলবে নানা উপকারিতা।

আসুন দেখে নেওয়া যাক কিসমিস খাওয়ার উপকারিতা।

১ কিসমিস শরীরে আয়রনের ঘাটতি দূর করার পাশাপাশি রক্তে লাল কণিকার পরিমাণ বাড়ায়।
২ শুকনো কিসমিস খাওয়ার পরিবর্তে ভিজিয়ে খেলে উপকার বেশি। কিসমিস ভেজানো জল রক্ত পরিষ্কার করতে সাহায্য করে।
৩ প্রতিদিন কিসমিসের জল খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য, অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি পাবেন ওষুধ ছাড়াই। পাশাপাশি হজমে সহায়তা করে।
৪ কিসমিস হৃদক্রিয়া ভালো রাখে।
৫ কিসমিস কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখে।
৬ কিসমিসে প্রচুর ভিটামিন এবং খনিজ আছে।
৭ কিসমিসে আছে প্রাকৃতিক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা সহজেই রোগমুক্তির কারণ।
৮ কিসমিসে আছে প্রচুর আয়রন, পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং ফাইবার।
৯ কিসমিস ভেজানো জলও শরীরের পক্ষে খুবই উপকারি। কিসমিসের জল লিভার পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, এই জল খেলে শরীরে জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়া শুরু হয়। যার ফলে রক্ত পরিশোধিত হতে শুরু করে। পাশাপাশি ভালো থাকে কিডনিও।
১০ কিসমিসে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন সি, সেলেনিয়াম, জিংক এর সম্মিলিত ক্রিয়া ত্বককে সুস্থ, সুন্দর রাখে।
১১ কিসমিস ক্যালসিয়াম ও বোরন সমৃদ্ধ হওয়াতে দাঁত ও হাড় গঠনে কাজ করে।
১২ কিসমিস প্রাকৃতিক শর্করায় পূর্ণ এবং অল্প পরিমাণে খেলে আপনার মিষ্টি খাওয়ার আকাঙ্ক্ষা কমে যাবে।

যারা বেশি উপকার পেতে চান তারা রাতে দুই কাপ জলে একটু কিসমিস ভিজিয়ে রেখে দিন। কিসমিস যত গাঢ় রংয়ের হবে, তত উপকারী। পরের দিন সকালে ওই কিসমিস ছেঁকে নিন। এবার কিসমিস ভেজানো জলটা হালকা গরম করুন। খালি পেটে এই জল খেয়ে নিন।

সপ্তাহে কমপক্ষে চারদিন কিসমিস ভেজানো জল খেলে তা পেট পরিষ্কার রাখতে বিশেষভাবে সাহায্য করে।

যারা প্রায়শই পেটের গণ্ডগোলে ভোগেন তাদের জন্য এই টনিক বিশেষ উপকারি। পাশাপাশি কিসমিস থেকে পাওয়া যাবে ভরপুর এনার্জি, যা সারাদিন আপনাকে রাখবে প্রাণবন্ত।

Related Articles

Back to top button