আক্কেল দাঁত ওঠে কেন? প্রচণ্ড ব্যথা হলে যা যা করণীয়

আক্কেল দাঁত ওঠার অভিজ্ঞতা সবারই জানা। প্রচণ্ড ব্যথা সহ্য করতে হয় এই দাঁত উঠলে। কয়েকদিন পর্যন্ত ব্যথা থাকে। সেইসঙ্গে খাবার চিবানোসহ গিলতে গেলেও প্রচণ্ড কষ্ট হয়।

অনেক সময় আক্কেল দাঁত ওঠার বথা সহ্য করতে না পেরে ব্যথানাশক ওষুধ খেতে হয়। এ ছাড়াও অসহ্য যন্ত্রণা হলে সার্জারি পর্যন্তও করতে হয় অনেকের ক্ষেত্রে। আক্কেল দাঁত আসলে কী? কেনই বা এই দাঁত ওঠার সময় এতো ব্যথা হয়?

আক্কেল দাঁত কী?

মুখের একদম শেষ মাথায় ওপরে ও নীচে দুইপাশের মোট ৪টি দাঁতকে বলা হয় আক্কেল দাঁত। সাধারণত ১৮-২৫ বছররের মধ্যে যেকোনো সময় আক্কেল দাঁত ওঠে। মুখে ৩২টি দাঁত ধরার জায়গা না থাকলে আক্কেল দাঁত ওঠার সময় প্রচণ্ড ব্যথা হয়।

কারণ দাঁত বেরিয়ে আসার জায়গা পায় না। অনেক সময় অপারেশন করে ওই দাঁতের জন্য জায়গা করে দিতে হয়। অনেকেই বলে থাকেন, আক্কেল দাঁত ওঠা মানেই আক্কেল হওয়া। বিষয়টি কিন্তু ঠিক নয়।

আক্কেল দাঁত ওঠার সময় ব্যথা হয় কেন?

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওরাল অ্যান্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মাহমুদা আক্তার জানান, আক্কেল দাঁত ওঠার সঙ্গে সঙ্গে প্রথমত প্রচণ্ড ব্যথা হয়। সেখানকার মাড়িটা ফুলে যায়।

এই ফোলাভাব এতো মারাত্মক হয় যে, মুখের ভেতরসহ গালে ও গলার দিকেও ফুলে ওঠে। রোগী হয়তো অনেক সময় দ্বিধায় পড়ে যায় টনসিলের ব্যথা বা মামস হয়েছে ভেবে। আক্কেল দাঁতের জন্য যে গলা, মুখ ফুলে যেতে পারে, এ বিষয়ে আমাদের ধারণা কম।

ডা. মাহমুদা আক্তার সতর্ক করে জানান, আক্কেল দাঁত ওঠার সময় যদি বারবার ব্যথা হয়, আবার কমে যায়-এতে অনেকেই একে এড়িয়ে যান। ভাবেন এটি সাধারণ বিষয়। তবে জানেন কি, দাঁতটি যেহেতু একটি হাড়ের মধ্যে আছে, সেই সংক্রমণ বাড়তে বাড়তে হাড়টি ক্ষয় হয়ে গলার দিকে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

আক্কেল দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায় জেনে নিন-

>> লবণ জলে কুলকুচি করুন। দাঁত ব্যথা কমাতে লবণ জল দিয়ে কুলি করা উপকারী। হালকা গরম জলে সোডিয়াম ক্লোরাইড মিশিয়েও কুলি করতে পারেন। এটি ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াগুলো মেরে ফেলে এবং মাড়িকে সুস্থ রাখে।

কখনও কখনও আক্কেল দাঁতের কারণে, অন্য দাঁতে ব্যথা শুরু হয় বা সিস্ট হয়। লবণ জলে ধুয়ে ফেললে ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। দাঁত, মাড়ি, গলায় ব্যথা কমাতে খুব ভালো কাজ করে লবণ গরম জল। এক গ্লাস গরম জল এক চা চামচ লবণ মিশিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এতে যেকোনো ইনফেকশন সেরে যাবে।

>> পিপারমিন্ট পাতায় উপস্থিত থাকে, যা ব্যথা এবং প্রদাহ দূর করতে সহায়তা করে। পিপারমিন্টের নির্যাসে এক টুকরো তুলো ডুবিয়ে মাড়িতে লাগান। পিপারমিন্ট চাও খুব ভালো।

>> ক্লোভ অয়েলে অ্যানালজেসিক বৈশিষ্ট্য আছে, যা দাঁতের ব্যথা উপশম করে। এটি ব্যাকটেরিয়ার সঙ্গে লড়াই করতে সহায়তা করে এবং সংক্রমণের ঝুঁকি দূর করে। ব্যথা উপশম করতে লবঙ্গ তেল বা ছয়টি লবঙ্গের কুঁড়ি জল ফোটান এবং মাড়িতে ম্যাসাজ করুন। এতে ব্যথা থেকে মুক্তি মিলবে।

>> অ্যালোভেরা আক্কেল দাঁত ও আশেপাশের দাঁতে ব্যথা হলে সহজে উপশম পাওয়া যায়। দাঁতের ফোলাভাব দূর করে। দাঁতের গোড়ায় অ্যালোভেরা জেল লাগাতে পারেন। এটি সেই অংশটি শীতল রাখে এবং ব্যথা হ্রাস করে।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress