বিভিন্ন সাস্থ জনিত সমাধানে ‘কর্পূর’

কর্পূর বা ন্যাপথলিন তো নিশ্চয়ই চেনেন। কাপড়ের ভাজে ভাজে এটি ছড়িয়ে দেওয়া হয়। অনেকসময় বেসিন কিংবা বাথরুমেও এটি ব্যবহার করা হয়।

তবে কেবল ঘরোয়া কাজেই নয়, বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দূর করতেও এই উপাদানটি বেশ উপযোগী।

র‍্যাশ কমাতে : ত্বকে র‍্যাশ বা চুলকানি সমস্যা হচ্ছে? কর্পূরের তেলকে পানির সঙ্গে মিশিয়ে আক্রান্ত স্থানে মালিশ করুন। দ্রুত ত্বকের সমস্যা কমবে।

ত্বকের সমস্যায় : এগজিমা, সোরিয়াসিসের মতো ত্বকের অসুখের চিকিৎসায় ব্যবহার করুন কর্পূর। খেয়াল করে দেখবেন, এসব অসুখের বেশিরভাগ মলমেই কর্পূর থাকে।

চুলের যত্নে : চুলের জন্য কতকিছুই তো করলেন, এবার ব্যবহার করুন কর্পূরের তেল। চুলের জন্য যে তেল ব্যবহার করেন তার সঙ্গে কর্পূরের তেল মিশিয়ে ভালো করে মাথার ত্বকে মালিশ করুন। এতে চুল পড়ার হার কমবে। সে সঙ্গে চুলের স্বাস্থ্যও ভালো থাকে।

অনিদ্রা দূর করতে : চোখে ঘুম আনতে সাহায্য করে কর্পূরের গন্ধ। যারা অনিদ্রা সমস্যায় ভোগেন তারা বালিশে কয়েক ফোঁটা কর্পূরের তেল দিয়ে রাখলে এই সমস্যা কমবে।

প্রদাহ কমাতে : শরীরে আঘাত লাগলে আঘাতপ্রাপ্ত স্থানে কর্পূর মালিশ করুন। দ্রুত ব্যথা কমবে।

ঠান্ডা ও গলার সংক্রমণে : সর্দি কাশি উপশমে বহুকাল থেকে কর্পূর ব্যবহৃত হয়ে আসছে। বুকে পিঠে কর্পূরের তেল মালিশ করলে ঠান্ডা লাগার প্রবণতা কমে।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress