বেশিদিন বাঁচতে চান তাহলে আজই ত্যাগ করুন এই ৫টি অভ্যাস, জেনেনিন অবশ্যই আর সুস্থ থাকুন

মানুষ হল অভ্যাসের দাস। জীবনে চলার পথে শৈশব থেকে আমৃত্যু পর্যন্ত আমরা নানান অভ্যাসে অভ্যস্ত হয়ে পড়ি। যাদের মধ্যে কিছু অভ্যাস হয় ভালো এবং কিছু হয় খারাপ, তবে এদের প্রত্যেকেরই আমাদের জীবনের ওপর প্রভাব সুদূরপ্রসারী। তবে স্বাস্থ্য সম্পর্কিত কুঅভ্যাসগুলি আমরা নিজেদের অজান্তেই গড়ে তুলি যা এক কথায় আমাদের জন্য “স্লো পয়জন” এর কাজ করে। তাই সুস্থ স্বাভাবিক ভাবে বেঁচে থাকার জন্য আজই আমাদের এই অভ্যাসগুলো বদলে ফেলতে হবে।

1) বেশি ঘুম: একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের জন্য দিনে ৮ ঘন্টা ঘুম হলো যথেষ্ট। অতিরিক্ত ঘুমের প্রবণতা বিভিন্নধরনের শারীরিক সমস্যা যেমন ওবিসিটি, ব্যাক পেইন, হূদরোগ, মাথা যন্ত্রণা প্রভৃতি শারীরিকব্যাধি ডেকে আনতে পারে।

2) কম পরিমাণে খাওয়া: বর্তমান সময়ে স্লিম ফিট থাকার তাগিদে অনেকেই পরিমিত খাদ্য গ্রহণ করেন না। ওজন কমানোর জন্য ডায়েটিং ফলো করার দৌলতে অনেকক্ষণ ক্ষিদে চেপে রাখার দরুন শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে এবং ওজন উল্টে বেড়ে যায়।

3) খালি পেটে চা পান: খালি পেটে চা বা কফি পান করলে দেখা দিতে পারে নানা ধরনের ক্রনিক গ্যাসের সমস্যা। পেট ব্যাথা, বদহজম সহ অ্যাংজাইটি, ডিসরাপটিভ স্লীপ প্যাটার্ন ছাড়াও নানান শারীরিক সমস্যা

4) এক্সারসাইজ না করা: শরীরকে কর্মক্ষম এবং সচল রাখতে প্রত্যেক মানুষেরই উচিত দিনে অন্তত এক ঘণ্টা ব্যায়াম করা। একদমই ব্যায়াম না করলে বয়স বাড়ার সাথে সাথে শরীর হয়ে পরে অথর্ব এবং পিঠে ব্যাথাঃ, গেঁটেবাত, সায়াটিকা প্রভৃতি রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটতে থাকে।

5) বেশি রাত করে ডিনার: বেশি রাত করে ডিনার করলে খাবারের পুষ্টিগুণ এর ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যায় এবং শরীর ঠিকভাবে তার পাচন করতে পারে না। রাত্রিবেলায় বেশি খেলে কিছুক্ষণ হাঁটার পরই ঘুমাতে যাওয়া উচিত।