করোনাকালে ফুসফুস সুস্থ রাখবে সহজ ৬টি উপায়

বর্তমানে করোনাভাইরাস একটি মহামারির নাম। সারা বিশ্বে এই ভাইরাসে প্রায় নয় লাখের মতো মানুষ মারা গেছেন। বাংলাদেশেও এরই মধ্যে চার হাজার চারশ ৭৯ জন মারা গেছেন। তবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেই যে ভয়ের এমন কিছু নয়। কেউ কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে রোগীর কোনও উপসর্গ নেই। এই বিষয়ে চিকিৎসকরা বলছেন যাদের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি তারা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলেও একেবারে কাবু হয়ে পড়েন না। দিব্যি সুস্থ মানুষের মতো চলাফেরা করতে পারেন। তবে করোনাকালীন এই সময়ে অবশ্যই ফুসফুসের যত্ন নিতে হবে। কারণ করোনাভাইরাস ফুসফুসেই অ্যাটাক করে থাকে বেশি। তাই করোনাকালীন এই সময়ে ফুসফুসের যত্ন নিতে যা করণীয়-
বালিশ ব্যায়াম: পাঁচ থেকে ১০ সেকেন্ড বুকে বালিশ দিয়ে উপুড় হয়ে শুয়ে জোরে শ্বাস নিন। এরপর ধীরে শ্বাস ছাড়ুন। এভাবে শ্বাস নিন আর শ্বাস ছাড়ুন। এই ব্যায়ামটি করোনা রোগীদের জন্য খুবই উপকারী। এটি আপনার ফুসফুস থেকে রক্তে অক্সিজেন সরবরাহ করবে।
নিবিড় ঘুম: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের ঘুমের বিকল্প নেই। তাই সময়মতো ঘুমাতে যাওয়া এবং তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করতে হবে। যেহেতু অল্প পরিশ্রমেই শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে তাই ঘুমের পরিমাণ বাড়াতে হবে। সকালে বারান্দা কিংবা ছাদে একটু হাঁটাহাঁটি করুন। কারণ ভোরবেলায় বাতাসে অক্সিজেনের পরিমাণ বেশি থাকে। যে বাতাস আপনার ফুসফুসের জন্য খুবই উপকারী।
ওয়েট ট্রেনিং: করোনা থেকে উঠার পর ক্লান্তি দূর করতে ওয়েট ট্রেনিং ব্যায়ামের অভ্যাস গড়ে তুললে শরীরের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। এজন্য দীর্ঘ শ্বাস ও ধীরে শ্বাস ছাড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে- যাতে করে ফুসফুসের অক্সিজেনের সঞ্চালনও বৃদ্ধি পাবে।
হাঁটুন: শুধু করোনাকারীন সময় নয়, নিয়মিত হাঁটা আপনার ফুসফুসের কার্যক্ষমতাকে বৃদ্ধি করে। তবে আপনার যদি হাঁটার অভ্যাস না থাকে আর আপনি যদি সম্প্রতি করোনা থেকে সেরে ওঠে থাকেন তবে অবশ্যই নিয়মিত হাঁটার চেষ্টা করুন। এতে নিজের দমের অবস্থা বুজতে পারবেন। হতে পারে আগের থেকে ফুসফুসে অক্সিজেনের পরিমাণ কম থাকায় আপনি হাঁপিয়ে যাবেন। এতে কোনও সমস্যা নেই। প্রতিদিন নিয়ম করে হাঁটলে আপনার ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।
যোগব্যায়াম: যোগব্যায়ামের উপকারের কথা তো আমরা সবাই জানি। প্রাচীন ভারতীয় ঋষিরা যোগব্যায়ামের মাধ্যমে শরীর তো ফিট রাখতেনই। সেইসঙ্গে নিজের জীবনী শক্তিও বাড়িয়ে তুলতেন। তাই শরীরে অক্সিজেন সরবরাহ বাড়াতে পদ্মাসনে বসুন, মেরুদণ্ড সোজা রেখে নাক দিয়ে শ্বাস নিয়ে মুখ দিয়ে ধীরে ধীরে ছাড়ুন। এক আঙুলে বাম দিকের নাক চেপে ধরে ডান দিক দিয়ে শ্বাস নিন। পুরো শ্বাস ধীরে ধীরে ছাড়ুন। মাউন্টেন যোগা বা তাড়াসনও বেশ কার্যকর ফুসফুসের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধিতে।
পুশ আপ ব্যায়াম: ফুসফুসের জোর বাড়ানোর জন্য পুশ আপ, প্লাংক, সাইড প্লাংক ইত্যাদি ব্যায়াম করতে পারেন। দাঁড়িয়ে দীর্ঘশ্বাস নেয়ার চেষ্টা করুন ফুসফুসে অক্সিজেন সঞ্চাল বৃদ্ধি পাবে। এছাড়া ব্যায়াম করার সময় জোরে শ্বাস নিতে হবে আর ধীরে ছাড়তে হবে। এতে দেহের পেশিশক্তি বৃদ্ধি পাবে।
সতর্কতা: বয়স ও শারীরিক সক্ষমতার ওপর নির্ভর কেরে এই ধরনের ব্যায়াম করতে হবে। যাদের হৃদরোগ কিংবা বুকে ব্যথাজনিত রোগ আছে তাদের এই ধরনের ব্যায়াম করার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।