April 14, 2024 | 9:51 AM

কথায় বলে, কেনাকাটা করলে নাকি মন ভালো থাকে। কথাটা আসলে মিথ্যাও নয়। পছন্দের এবং নতুন নতুন জিনিসপত্র কিনতে পারলে কার না মন ভালো হয়! কিন্তু আজ যেটি প্রয়োজনীয় মনে হচ্ছে, কয়েক বছরের মধ্যেই সেটির আর প্রয়োজন নাও থাকতে পারে। হতে পারে তা পোশাক, ঘর সাজানোর জিনিস কিংবা বৈদ্যুতিক কোনো সরঞ্জাম। বাড়িতে নিশ্চয়ই এমন অনেক জিনিসপত্র জমে আছে, যার আর তেমন কোনো প্রয়োজন নেই? নতুন বছরের শুরুতেই সেগুলো বিদায় জানানোর সময় হয়ে এসেছে।

পোশাক

আলমারিতে এমন অনেক পোশাক আছে, যেগুলো আপনি অনেকদিন ধরে পরেননি কিংবা খুব শিগগির পরা হবে না। পছন্দ করে কেনা পোশাকটিও এক সময় আর পছন্দের তালিকায় থাকে না। কিংবা থাকে না পরার উপযোগিতা। আবার এমন হতে পারে, ছিঁড়ে না গেলেও পুরোনো হয়ে গেছে। আপনার যেসব পোশাক খুব বেশি প্রয়োজন নেই সেগুলো দরিদ্র বা সুবিধাবঞ্চিতদের দান করে দিন। আপনার অপ্রয়োজনীয় পোশাকই তাদের কাছে প্রয়োজনীয় ও মূল্যবান। এভাবে বাছাই করে অপ্রয়োজনীয় পোশাক বাদ দিলে আলমারি খালি করা সহজ হয়ে যাবে। আবার অনেক দরিদ্র পরিবারও খুশি হবে। শীতের পোশাক দান করতে পারলে তারা আরও বেশি উপকৃত হবে।

জুতা

আপনার জুতার তাকে অনেক ধরনের জুতা সাজানো আছে নিশ্চয়ই? আমাদের মধ্যে বেশিরভাগই কিন্তু নানা ধরনের জুতা কিনতে পছন্দ করেন। একেক ধরনের পোশাকের সঙ্গে একেক ধরনের জুতা কেনা হয়ে থাকে। এরপর সেসব জুতার বেশিরভাগই খুব একটা ব্যবহার করা হয় না। আবার ভালো মানের জুতা কেনা হলে খুব সহজে নষ্টও হয় না। সেসব জুতা সরিয়ে জায়গা খালি করুন নতুন বছরে। জুতাগুলো এমন কাউকে দান করে দিন যাদের প্রয়োজন আছে।

বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম

আমাদের দৈনন্দিন জীবনের কাজকে সহজ করতে বৈদ্যুতিক বিভিন্ন সরঞ্জামের বিকল্প নেই। টানা ব্যবহারের পর একটা সময় হয়তো সেগুলো আগের মতো প্রয়োজন হয় না বা অকেজো হয়ে পড়ে থাকে। সেসব তখন বাড়িতে বাড়তি আবর্জনা হিসেবে থেকে যায়। বাড়িতে জায়গা খালি করতে হলে সেসব সরঞ্জাম কেজি দরে বিক্রি করে দিতে পারেন। অনেক সংস্থা আছে যারা পুরোনো জিনিসপত্র কিনে রিসাইকেল করে থাকে, তাদের কাছেও বিক্রি করে দিতে পারেন।

পুরনো বইপত্র

ধুলোবালি জমার জন্য সবচেয়ে আরামদায়ক জায়গা হলো পুরোনো বইপত্র। যারা পড়তে ভালোবাসেন, তারা নানা ধরনের বইপত্র, পেপার, ম্যাগাজিন সংগ্রহ করে থাকেন। সেসব সহজে হাতছাড়াও করতে চান না। কিন্তু আপনার ঘরে যদি দীর্ঘদিন বই পড়ে থাকে তাহলে একটা সময় তা নষ্ট হতে শুরু করবে। তাই বাড়িতে পুরোনো বই থাকলে তা কোনো লাইব্রেরিতে দান করে দিতে পারেন। সেখান থেকে অনেকেই উপকৃত হতে পারবেন।