অভিযুক্তদের মৃতদেহ নিয়ে কি করা হবে, উঠে এলো চাঞ্চল্যকার তথ্য

More articles

ইতি ঘটলো লড়াইয়ে। মৃত্যুর কোলে ঢলে উন্নাওয়ে গণধর্ষণের শিকার হওয়া তরুণী। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে গণধর্ষণের শিকার হওয়ার পর পাশে পায়নি কাউকেই। না প্রশাসন, না নাগরিক সমাজ কেউ সেভাবে এগিয়ে আসেনি সাহায্য করতে। কিছুটা নিজের সাহস আর অদম্য লড়াকু মানসিকতার উপর ভর করেই লড়ে চলেছিলেন তিনি।

বারবার প্রাণনাশের চেষ্টা হয়েছে তার। প্রভাবশালী অভিযুক্তরা প্রভাব খাটিয়ে সমস্ত সাক্ষ্য প্রমাণ লোপাটের আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছে। তবু পিছু হটেনি সে। আদালতের উপর ভরসা রেখে অসম লড়াইয়ে জয়ের স্বপ্ন চোখে নিয়ে টক্কর দিয়েছে ক্ষমতার বিরুদ্ধে। কিন্তু শেষরক্ষা হলো না।

দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে গত শুক্রবার রাত ১১.৪০ মিনিটে শেষ হয়ে গেল সমস্ত লড়াই। পৃথিবী ছেড়ে চিরতরে বিদায় নিলেন উন্নাওয়ের নির্যাতিতা। মৃত্যুকালীন জবানবন্দিতে সে জানায়, ‘বৃহস্পতিবার ভোরে রেলস্টেশনে আমার উপর হামলা করে। অভিযোগকারীরা ছুরি, লাঠি দিয়ে আঘাত করার পর পেট্রোল ঢেলে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করে।’

আদালতে বিচার চলাকালীন জামিনে মুক্ত অভিযুক্তরা আগুনে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করে নির্যাতিতাকে। অগ্নিদগ্ধ নির্যাতিতা নিজেই অন্য একজনের ফোন থেকে পুলিশকে সমস্ত কিছু জানায় সে।

Latest