আমড়াতে রয়েছে এইসব অজানা স্বাস্থ্য উপকারি গুন-

More articles

সাইট্রাস ফল আমড়া অতি জনপ্রিয় ও পুষ্টিগুণে ভরপুর একটি মজাদার ফল। কমবেশি সারাবছরই এই ফলটি পাওয়া যায়। তবে বর্ষাকালে এই ফলটি বেশি সহজলভ্য। আমড়া কাঁচা অবস্থায় টক ও পাকলে মিষ্টি হয়। অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর এই ফলটি সুস্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। প্রতি ১০০ গ্রাম আমড়াতে শর্করার পরিমাণ ৪ থেকে ৫ শতাংশ, আমিষ ১.১ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৩৬ মিলিগ্রাম, লৌহের পরিমাণ ৪ মিলিগ্রাম, ক্যারোটিন ২৭০ মাইক্রোগ্রাম, ভিটামিন-বি’ ১০.২৮ মিলিগ্রাম ও ভিটামিন-সি’ ২০ মিলিগ্রাম পাওয়া যায়। আমড়ায় সবচেয়ে বেশি যা পাওয়া যায় তা হলো জল ও ডায়েটারি ফাইবার। জেনে নিন আমড়া খাবার কিছু উপকারিতা।

প্রথমতঃ একটি আমরা আমাদের শরীরে দৈনিক লৌহের চাহিদার ১৫ থেকে ৩৫ শতাংশ পূরণ করে থাকে। ফলে এটি রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা সঠিক রেখে রক্তস্বল্পতার সমস্যা সমাধানে উপকারী।

দ্বিতীয়তঃ আমড়ায় থাকা ডায়েটারি ফাইবার হজম প্রক্রিয়া ভালো রেখে কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা সমাধানে উপকারী।

তৃতীয়তঃ আমড়া মুখের অরুচি ভাব দূর করতে সাহায্য করে। এজন্য আমড়ার শাঁস সারারাত ভিজিয়ে রেখে পরের দিন সকালে তার মধ্যে অল্প চিনি মিশিয়ে খেলে মুখের রুচি ফেরায়।

চতুর্থতঃ ভিটামিন-সি’ সমৃদ্ধ এই ফল বিভিন্ন রোগের ঝুঁকি কমাতে উপকারী। আমড়া ক্যান্সার ও হৃদরোগের ঝুঁকি দূর করে এবং সর্দি-কাশির সমস্যা সমাধান করে থাকে। এছাড়াও ত্বক, নখ ও চুল ভালো রাখতে আমড়া বিশেষ ভূমিকা রাখে।

পঞ্চমতঃ আমড়া শরীরের ক্ষতিকারক কোলেস্টেরল দূর করতে বিশেষ ভূমিকা রাখে। এছাড়া এটি শরীরের উত্তাপ নিষ্কাশন করে শরীরকে আদ্র রাখতে সাহায্য করে।

শুধু আমড়া নয়, আমড়া গাছের পাতা ও স্বাস্থ্যের জন্য সমান উপকারী। আমড়া গাছের পাতা ডায়রিয়া, কোষ্ঠকাঠিন্য, বদহজম ও পেটব্যথার চিকিৎসায় ঔষধি হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এছাড়া কোনো পোড়া বা ক্ষত স্থানে আমড়া গাছের পাতা ও শিকড় বেটে লাগালে সেটি দ্রুত ক্ষত নিরাময়ে সাহায্য করে।

★এরকম সমস্ত আপডেট পেতে ওপরের ডান দিকের ফলো অপশনে ক্লিক করুন★

Latest