জীবনযাপন

ভেজাল মধু চিনবেন কিভাবে রইলো তার জন্য কিছু বিশেষ উপায়, দেখেনিন একঝলকে

উচ্চ ঔষধিগুণ সম্পন্ন ভেষজ তরল পদার্থ হচ্ছে মধু। মধু স্বাস্থ্যগত উপকারিতার পাশাপাশি একাধিক রোগ যেমন-পিত্ত থলির সংক্রমণ, বাতের ব্যথায়, মুখের দুর্গন্ধ, এমনকি শরীরের বাড়তি ওজন কমাতেও খুবই কার্যকরী উপাদান। তবে ঠিক কি করে জানবেন, আপনি যে মধু খাচ্ছেন, সেটি খাঁটি? সম্প্রতি জি নিউজের এক প্রতিবেদনে খাঁটি মধু চেনার আটটি সহজ উপায় উঠে এসেছে। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক খাঁটি মধু চেনার উপায়গুলো-

১. খাটি মধুর স্বাদ হবে মিষ্টি, এতে কোনও ঝাঁঝালো ভাব থাকবে না।

২. মধুতে কখনও কটু গন্ধ থাকবে না। খাঁটি মধুর গন্ধ হবে মিষ্টি ও আকর্ষণীয়।

৩. এক টুকরো ব্লটিং পেপার নিন, তাতে কয়েক ফোঁটা মধু দিন। যদি কাগজ তা সম্পূর্ণ শুষে নেয়, বুঝবেন মধুটি খাঁটি নয়।

৪. শীতের দিনে বা ঠান্ডায় খাঁটি মধু দানা বেঁধে যায়।

৫. একটি মোমবাতি নিয়ে এর সলতা ভালভাবে মধুতে ডুবিয়ে নিন। এবার আগুন দিয়ে জ্বালাবার চেষ্টা করুন। যদি জ্বলে ওঠে, তাহলে বুঝবেন যে মধু খাঁটি। আর যদি না জ্বলে, বুঝবেন যে মধুতে জল মেশানো আছে।

৬. বেশ কিছুদিন ঘরে রেখে দিলে মধুতে চিনি জমতেই পারে। এ সময় খাঁটি মধু পর্যবেক্ষনে এর পাত্রটি গরম জলে কিছুক্ষণ রেখে দেখুন।এই চিনি গলে মধু আবার স্বাভাবিক হয়ে আসবে। কিন্তু নকল মধুর ক্ষেত্রে এটা হবে না।

৭. এক টুকরো সাদা কাপড়ে মধু মাখান। আধ ঘণ্টা এ অবস্থায় রেখে দিন। তারপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। যদি দাগ থেকে যায়, বুঝবেন মধুটি খাঁটি নয়।

৮. গ্লাসে বা বাটিতে খানিকটা জল নিন। তার মধ্যে এক চামচ মধু দিন। যদি মধু জলের সঙ্গে সহজেই মিশে যায়, তাহলে বুঝবেন যে এটা অবশ্যই নকল। আসল মধুর ঘনত্ব জলের চাইতে অনেক বেশী, তাই তা সহজে মিশবে না। এমনকি নাড়া না দিলেও মধু জলে মিশবে না।

Related Articles

Back to top button