April 14, 2024 | 1:05 AM

সবার রান্নাঘরেই আস্ত কিংবা গুঁড়ো ধনিয়া থাকে। এ উপাদানটি রান্নার স্বাদ বাড়াতে ব্যবহৃত হয়। রান্নায় ব্যবহারের পাশাপাশি অনেকে মুখসুদ্ধি হিসেবে আস্ত ধনিয়াও খেতে পছন্দ করেন। আর ধনিয়া পাতা ছাড়া তো খাবারের স্বাদ বাড়ানো মুশকিল হয়ে পড়ে।

মসলা হিসেবে পরিচিত ধনিয়া শুধু রান্নার স্বাদই বাড়ায় না; বরং শরীরও সুস্থ রাখে। সব মসলারই কিছু না কিছু পুষ্টিগুণ থাকে। ঠিক তেমনই ধনিয়াতেও আছে অনেক পুষ্টি উপাদান। এমনকি আয়ুর্বেদেও এর কার্যকারিতার উল্লেখ আছে।

এতে আছে ক্যালসিয়াম, ফাইবার, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, খনিজ, বি-ক্যারোটিনয়েডস, পলিফেনলসের মতো উপকারী ভেষজ গুণ। ধনে বীজ ও পাতায় আছে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ধনিয়ার পুষ্টিগুণ শরীরে ভালো কোলেস্টেরল বাড়ায় এবং হজমক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এ ছাড়াও কিডনি সুস্থ রাখতে, ইমিউনিটি বৃদ্ধিতে, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে, রক্তস্রাবের সমস্যা দূর করতে ধনিয়ার জুড়ি মেলা ভার।

করোনাকালে ভারতের আয়ুষমন্ত্রক থেকেও জানানো হয়েছে, সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে ও স্বাস্থ্যকর খাবারের অভ্যাসের পাশাপাশি অল্প গরম জল ধনিয়া গুঁড়ো দিয়ে বা আস্ত ধনিয়া ভেজানো জল চায়ের মতো পান করুন।

কীভাবে তৈরি করবেন ধনিয়ার পানীয়?

১০ গ্রাম ধনে বীজ থেঁতো করে নিন। ২ লিটার জল এই ধনে ভিজিয়ে রাখুন সারারাত। সকালে চামচ দিয়ে গুলিয়ে তারপর জল ছেঁকে নিন। সারাদিন ধরেই একটু একটু করে পান করুন ধনিয়ার পানীয়।

এর উপকারিতা কী?

>> ধনিয়া ভেজানো জল খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত হয়। এই জলে উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীরের ফ্রি র্যাডিকাল কমাতে সাহায্য করে। ফলে বিভিন্ন সংক্রমণের হাত থেকে সহজেই মুক্তি মেলে।

>> হজমশক্তি বাড়ায় ধনিয়ার পানীয়। পাচনতন্ত্র সুস্থ রাখার মাধ্যমে হজমশক্তি বাড়ায় এই উপাদানে থাকে পুষ্টিগুণ। এ কারণে পাচনতন্ত্র আরও ভালোভাবে কাজ করে।

>> ধনিয়ার এই পানীয় ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিশেষ কার্যকরী। যারা ডায়াবেটিসে ভুগছেন তারা অবশ্যই নিয়মিত এই পানীয় পান করুন।

>> ধনিয়া ভেজানো জল খেলে শরীর ডিটক্স হয়। এটি পান করলে শরীর থেকে টক্সিন বের হয়ে যায়। এ কারণে সংক্রমণের ঝুঁকি কমে।

>> এই জল বা চা পান করলে চুল আরও মজবুত হয়। চুলের আগা ফাটা ও ভেঙে যাওয়া রোধ হয়। ধনিয়া বীজে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ, সি এবং কে থাকে। যা চুলকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে।

>> নিয়মিত এইজল সকালে খালি পেটে পান করলে দ্রুত ওজন কমবে।

>> যাদের শরীর সবসময় গরম থাকে; এই জল নিয়মিত পান করলে সুফল মিলবে। শরীরের অতিরিক্ত তাপমাত্রা কমে যাবে।

>> আর্থ্রাইটিসের সমস্যায় যারা ভুগছেন; তাদের জন্য সেরা ঘরোয়া দাওয়াই হলো ধনিয়ার জল । এতে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদানসমূহ আর্থাইটিসের সমস্যা থেকে মুক্তি দেয়।

>> নিয়মিত এই জল পান করলে কিডনি পরিষ্কার থাকে। এর ফলে কিডনির বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি মেলে।