গরমে ত্বক ভালো রাখতে করুন এসব কাজ, দেখেনিন

এই গরমে নিজেকে সুস্থ রাখার পাশাপাশি ত্বকও ভালো রাখতে হবে। ত্বক খারাপ হয়ে গেলে তা যে শুধু সৌন্দর্যই নষ্ট করে তা নয়, এটি কিন্তু নানা অসুখেরও কারণ হতে পারে। গরমের তীব্রতায় ত্বকে লালচেভাব, ফুসকুড়ি, জ্বালাপোড়া ভাব, ট্যান ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে। গরমের সময়ে তাই ত্বকের প্রতি যত্নশীল হতে হবে।

গরমের সময়ে আবহাওয়ায় আর্দ্রতা বেড়ে যায়। যে কারণে ত্বকের তেল গ্রন্থিগুলো অতিরিক্ত সিবাম উৎপাদন করা শুরু করে। এতে ত্বক হয়ে যায় তৈলাক্ত। সেইসঙ্গে বাড়ে ব্রণের আধিক্য। ত্বকের সতেজতা নষ্ট হতে থাকে। এসময় সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির সংস্পর্শে আসার কারণে ত্বকে ট্যান পড়ে। এসব থেকে বাঁচতে আপনাকে যত্নশীল হতে হবে নিজের প্রতি। জেনে নিন এই গরমে ত্বক ভালো রাখতে কী করবেন-

শরীর ঢাকা পোশাক পরুন
গরমের সময়ে প্রতিদিন বাইরে বের হলে যতটা সম্ভব ত্বক ঢেকে রাখার চেষ্টা করুন। গরমে স্বস্তি পেতে অনেকে স্লিভলেস কিংবা ছোট হাতার পোশাক পরতে পছন্দ করেন। কিন্তু এ ধরনের পোশাক পরে রোদে বের হলে সূর্যের তাপে আপনার ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হবে। সেজন্য গরমের সময়ে হালকা রঙের শরীর ঢাকা পোশাক পরবেন। পোশাকের কাপড় যেন সুতি হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। সেইসঙ্গে বাইরে বের হওয়ার আগে সঙ্গে টুপি, সানগ্লাস, ছাতা ইত্যাদি সঙ্গে নেবেন। পাতলা সুতির স্কার্ফ দিয়ে মুখ ঢেকে রাখতে পারলে বেশি উপকার পাবেন।

সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন
আমাদের ত্বকে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে সূর্যের ইউভি-এ এবং ইউভি-বি রশ্মি। এর ফলে ত্বকে রোদে পোড়া ভাবের সৃষ্টি হয়। সেইসঙ্গে
ত্বকে বলিরেখা এবং অকালে বয়সের ছাপ পড়ার মতো সমস্যাও দেখা দিতে পারে। আর এ কারণেই বাইরে বের হওয়ার আগে ভালোভাবে সানস্ক্রিন মেখে বের হবেন। শুধু বাইরে বের হলেই নয়, যারা ঘরে থাকেন তাদেরও এসপিএফ-৩০ যুক্ত সানস্ক্রিন ব্যবহার করা উচিত।

হাইড্রেটেড থাকুন
গরমের সময়ে বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকার কারণে ঘামের পরিমাণও বেড়ে যায়। যে কারণে শরীরে তৈরি হতে পারে জলর ঘাটতি। তাই এসময় বেশি করে জল পান করা উচিত। দিনে অন্তত আট গ্লাস জল পান করবেন। সেইসঙ্গে ডিটক্স ওয়াটারও পান করতে পারেন। এতে শরীর হাইড্রেটেড ও সতেজ থাকবে। এসময় খাবারে বেশি করে সবজি ও মৌসুমী ফলমূল রাখুন। যেসব ফলে জলর পরিমাণ বেশি থাকে সেগুলো খান। এতে শরীরে জলর ঘাটতি হবে না। ত্বক থাকবে হাইড্রেটেড।

মুখ পরিষ্কার রাখুন
গরমের সময়ে মুখ পরিষ্কার রাখা জরুরি। দিনে এক অথবা দুইবার অয়েল-ফ্রি, নন-কোমিডোজেনিক, নন-ফোমিং ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। এতে ত্বকে জমে থাকা ধুলো-বালি, তেল, ময়লা পরিষ্কার হবে। বজায় থাকবে ত্বকের সতেজ ভাব। মুখ পরিষ্কার রাখার জন্য ত্বক নিয়মিত স্ক্রাব করবেন। এতে ত্বকের মৃত কোষ দূর হবে।

ওয়াটার বেসড ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন
শুধু শীতের সময়েই নয়, গরমেও ত্বক ভালো রাখতে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে। এসময় অয়েল-বেসড ময়েশ্চারাইজার ব্যবহারের বদলে ওয়াটার-বেসড হাইপোঅ্যালার্জেনিক ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন। এ ধরনের ময়েশ্চারাইজার হালকা ধরনের হয়। এটি গরমে ত্বক আর্দ্র রাখার পাশাপাশি ত্বককে কোমল করতে সাহায্য করবে।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress