জীবনযাপন

রূপচর্চায় ব্যবহৃত অলিভ অয়েলের বহুগুন সম্পর্কে জেনেনিন অবশ্যই!

অলিভ অয়েলকে ‘তরল সোনা’ বলেও ব্যাখ্যা করেন অনেকে। এই তেলের গুণাগুণ অন্যসব তেলের তুলনায় অধিক। যুগ যুগ ধরে এই তেল রান্না ছাড়াও ঘরোয়া চিকিত্সার নানা কাজে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। রূপচর্চার ক্ষেত্রেও অলিভ অয়েল অত্যন্ত কার্যকরী! চলুন জেনে নেয়া যাক রূপচর্চায় অলিভ অয়েলের কয়েকটি আশ্চর্য গুণ-

১. নখ লম্বা রাখতে যারা ভালবাসেন তারা নখের কিউটিকলকে আরও মজবুত রাখতে অলিভ অয়েল ব্যবহার করুন।

২.পা বা পায়ের গোড়ালি ফাটার সমস্যা সারাতে দুর্দান্ত কাজ দেয় অলিভ অয়েল। ফাটা গোড়ালিতে অলিভ অয়েল মেখে দেখুন। ফলাফল পেয়ে যাবেন।

৩. শ্যাম্পু করার আগে কুসুম গরম জলের সঙ্গে ২ থেকে ৩ চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে চুলের গোড়ায় গোড়ায় ভাল করে মালিশ করে অন্তত ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখে দিন। তারপর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন নিয়ম করে অলিভ অয়েল ব্যবহার করলে চুলের চাকচিক্য বাড়বে।

৪. পা বা পায়ের গোড়ালি ফাটার মতো ঠোঁট ফাটার সমস্যাতেও দুর্দান্ত কাজ দেয় অলিভ অয়েল। পর পর ৩-৪ দিন ঠোঁটে অলিভ অয়েল মেখে দেখুন। উপকার পাবেন।

৫. মেকআপ রিমুভার হিসাবেও অত্যন্ত কার্যকরী অলিভ অয়েল। তুলোর মধ্যে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল নিয়ে চোখ আর মুখের মেকআপ তুলে ফেলুন। ত্বকে কোনো রকম অস্বস্তি হবে না। ত্বক হয়ে উঠবে কোমল, দীপ্তীময়।

৬. শেভিং বা ওয়্যাক্সিং-এর আগে ক্রিম হিসাবে অলিভ অয়েল ব্যবহার করে দেখুন। ত্বকের উপর রেজার ব্যবহার করার আগে ত্বকে লাগান অলিভ অয়েল। এতে শেভিং বা ওয়্যাক্সিং-এর পরবর্তী জ্বালা বা অস্বস্তি থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

Related Articles

Back to top button