২২ বছর এর বেশি অবিবাহিত মেয়েরা সাধারণত যে অস্বস্তিতে পরে, জানলে চমকে ওঠবেন!

More articles

কিছু কিছু ক্ষেত্রে নারী পুরুষ নিয়ে সমান অধিকারের কথা উঠলেও কিছু জায়গায় তা সবকিছু নারীদের কেই সহ্য করতে হয়। আমাদের এই সমাজে একটাই ধারণা মেয়ে মানেই তার জীবনের মূল লক্ষ্য বিয়ে করা। কথায় আছে, মেয়েরা কুড়িতেই বুড়ি।আজকে এই কথাগুলো বলবার কারণ ২২ বছরের পর থেকে মেয়েদের কে বিয়ে দেওয়ার জন্য পাগল করে দেওয়া হয়।

একটি মেয়ের বয়স বাড়ার সাথে সাথে তার পরিবার এবং তার পাড়া-প্রতিবেশী এবং রিলেটিভদের এতটাই মাথা খারাপ লেগে যায় মেয়েটার বিয়ে দেওয়ার জন্য তারা কেউ দেখেনা যে মেয়েটা কি চায়। 99 শতাংশ মেয়ে কে এটার জন্য নানা অশান্তিতে পড়তে হয়।

প্রথমত, মেয়েটি যখন বাইরে নিজের কাজের ক্ষেত্রে বা অফিসে কোথাও যায় আর সেখানে যদি বিয়ে নিয়ে আলোচনা হয় তখনই সেই মেয়েটিকে শুনতে হয় যে তার বয়স বেড়ে যাচ্ছে কেন এখনো সে অবিবাহিত। যেটা প্রচন্ড অস্বস্তির কারণ হিসেবে দাঁড়ায়।

দ্বিতীয়ত, সেই মেয়েটির বাড়িতেই সে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নিজের বাড়ির লোক এবং পাড়া-প্রতিবেশী মুখে শুনতে হয় যে কেন এখনো বিয়ে করছে না, এবং তার বাড়ির লোকের তার বিয়ে নিয়ে সারাক্ষণ চিন্তা সে দেখতে পায়। যা প্রচন্ড অস্বস্তির কারণ।

তৃতীয়ত, মেয়েটি যখন কোন বিয়ে বাড়িতে বা কোনো অনুষ্ঠান বাড়িতে গেছে এবং সেও সেজেগুজে সবার সাথে আনন্দ করছে তখন সবাই মিলে তাকে ঘিরে ধরে কেন সে এখনো বিয়ে করেনি।

Latest