জীবনযাপন

আপনার চুলের বার্তি যত্নে চা পাতার কিছু অজানা ব্যবহার, দেখেনিন একঝলকে

এক কাপ চা আমাদের কর্মচঞ্চল করে তোলে। এক কাপ চা আমাদের সতেজ করে তোলে। তবে চায়ের ব্যবহার এখানেই শেষ না। চুলের যত্নে চা দারুণ কাজ করে। শরীরেও চায়ের প্রভাব রয়েছে। চলুন জেনে নেওয়া যাক।

নিষ্প্রাণ চুলের যত্নে:

অনেকের চুল ভেঙে যায়। এ সমস্যা থেকে রক্ষা করতে পারে ব্ল্যাক টি। যাদের চুলে উজ্জ্বলতা নেই, উষ্কখুষ্ক, তারাও এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন চায়ের লিকার ব্যবহারে। দুই ক্ষেত্রেই চায়ের লিকার চুলে দিয়ে ১০ মিনিট রেখে দিতে হবে। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালোভাবে পরিষ্কার করে ফেলতে হবে।

চুলের উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে:

চুলের উজ্জ্বলতার জন্য চায়ের লিকার দিয়ে কন্ডিশনারও বানিয়ে নিতে পারেন। চা পাতা ফুটিয়ে গরম করে নিন। তারপর ঠাণ্ডা করে ছেঁকে লেবুর রস দিয়ে কন্ডিশনার হিসেবে ব্যবহার করুন। নিয়মিত ব্যবহারে চুল হবে ঝলমলে।

খুশকির সমস্যায়:

শীতকালে অনেকের চুলে খুশকি দেখা যায়। তারা চাইলে চা পাতার প্যাক করে নিতে পারেন। এই প্যাক নিয়মিত ব্যবহারে চুলের খুশকি দূর হবে। ব্যবহার করা চায়ের পাতা ফেলে না দিয়ে পরিষ্কার জলে ধুয়ে ফেলুন। এরপর ঠাণ্ডা করে চুলে ব্যবহার করুন। এতে চুলের খুশকি দূর হবে ও চুল উজ্জ্বল হবে।

চুল পড়া বন্ধে:

চুল পড়া রোধ ও চুলের বৃদ্ধিতে কাজ করে চায়ের লিকার। চা পাতা জলে ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করে নিতে হবে। এরপর এই জল চুল ও মাথার তালুতে স্প্রে করতে হবে। নিয়মিত করলে চুল পড়া কমবে এবং চুলের বৃদ্ধি ভালো হবে।

চুল পাকা রোধে:

অনেকের কম বয়সে চুল পাকতে শুরু করে। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে চায়ের লিকার ব্যবহার করতে পারেন। পাকা চুলে কালো রং পেতে চাইলে চা পাতার সঙ্গে হেনার রস মিশিয়ে প্যাক করে নিন। এই প্যাক চুলে লাগিয়ে আধাঘণ্টা রেখে দিন। চুল শুকিয়ে এলে শ্যাম্পু করে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।

চা-এ ভিটামিন সি, ভিটামিন ই এবং প্যানথেল রয়েছে। যা চুলের বৃদ্ধি এবং চুলকে আরও ঝলমলে করতে সাহায্য করে।

Related Articles

Back to top button