জীবনযাপন

ওজন কমানোর সময় যে ৩টি বিষয় অব্যশই মনে রাখা দরকার আপনার, জেনেনিন

বাড়তি ওজন নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য অনেক বড় একটি সমস্যা। এতে যে কেবল বাহ্যিক সৌন্দর্য নষ্ট হয় তা কিন্তু নয়। এই বাড়তি ওজনের কারণে অনেক কঠিন রোগও দেহে বাসা বাঁধে। যা অনেক সময় আমাদের অকাল মৃত্যুর কারণও হয়।
তাই এই বাড়তি ওজন কমাতে অনেকেই ডায়েট এবং শরীরচর্চা করেন। তবে ওজন কমানোর সময় তিনটি বিষয় অবশ্যই আমাদের মাথায় রাখা জরুরি। কারণ বেশিরভাগ মানুষ কেবল কাঙ্ক্ষিত ওজন পাওয়ার দিকে মনোযোগ দেয়। তারা নিজের সুস্থতার দিকে খেয়াল করে না, যার ফলে অনেক ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে।

তাই যদি আপনিও ওজন কমানোর চেষ্টা করে থাকেন, তাহলে স্বাস্থ্যকরভাবে ওজন কমানোর জন্য আপনাকে অবশ্যই তিনটি জিনিস মনে রাখতে হবে। চলুন জেনে নেয়া যাক বিস্তারিত-

প্রতিদিনের খাবারে ফল রাখুন

সাধারণত ওজন কমানোর চেষ্টা করার সময় পরিশোধিত চিনি কম খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। ফলের মধ্যে যে প্রাকৃতিক চিনি থাকে তা আপনাকে সারাদিন চলার শক্তি যোগায়। সুতরাং নিজেকে সতেজ রাখতে এবং শক্তি সরবরাহ করতে প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় পর্যাপ্ত ফল যোগ করুন।

চলাফেরা বাড়ান

আপনার প্রতিদিনের চলাফেরা ওজন কমানোর জন্য সহায়ক হতে পারে। কারণ দীর্ঘ সময় বসে থাকলে তা আপনার ওজন আরো বাড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি কিছু মারাত্মক রোগের ঝুঁকি বাড়ায়। আপনি যদি প্রতিদিন এক ঘণ্টা শরীরচর্চা করেন তবে দিনের অন্যান্য সময়েও চলাফেরা বাড়াতে হবে। সিঁড়ি বেয়ে ওঠা, ফোনে কথা বলার সময় হাঁটাহাঁটি, অফিস থেকে হেঁটে বাড়ি ফেরা এসব আপনার মেটাবলিজম বাড়িয়ে রাখতে সাহায্য করে এবং ওজন কমাতে সাহায্য করে।

নিজেকে হাইড্রেটেড রাখুন

আপনি ওজন কমানোর চেষ্টা করুন বা না করুন, নিজেকে হাইড্রেটেড রাখা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। প্রায়ই আমরা ক্ষুধা আর জল পানের তৃষ্ণার ভেতরে পার্থক্য করতে পারি না। তাই ক্ষুধা অনুভব হলেই যেকোনো খাবার না খেয়ে বরং জল পান করুন। এতে বাড়তি খাওয়ার ফলে বাড়তি ওজনের ভয় থাকবে না। বরং জল পানের কারণে বারবার ক্ষুধার অনুভূতি কম হবে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী প্রতিদিন কমপক্ষে ২.৫ লিটার জল পান করা উচিত। আবহাওয়া, আপনার শারীরিক ক্রিয়াকলাপের মাত্রা এবং আরো অনেক কিছুর ওপর নির্ভর করে এই জল পানের পরিমাণ বাড়তে পারে।

Related Articles

Back to top button