নিজেদের অপরাধ ঢাকতে এক মহিলাকে গণধর্ষণ করলো পুলিশ কর্মীরা !

More articles

টোটকা24×7 নিউজ ডেস্ক, দেবপ্রিয়া সরকার : পুলিশ হেফাজতে ২২ বছরের এক যুবকের মৃত্যু ও যুবকের বৌদিকে গণধর্ষণ পুলিশের। ঘটনাটি ঘটে রাজস্থানের চুরুর এ। ৩৫ বছরের ধর্ষিতা মহিলার স্বামী শনিবার অভিযোগ করেছেন, ‘পুলিশ একটি চুরির মামলায় আমার ২২ বছরের ভাইকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। ৩ জুলাই ভাইকে নিয়ে এসেছিল পুলিশ। তবে সে দিনই ফের তাকে আর তার সঙ্গে আমার স্ত্রীকে পুলিশ তুলে নিয়ে যায়। ৬ জুলাই আমার ভাইয়ের উপর অত্যাচার চালিয়ে তাকে মেরে ফেলা হয়। আমার স্ত্রী সেই অত্যাচারের সাক্ষী ছিল বলে ওকে গণধর্ষণ করে পুলিশ। ওরা স্ত্রীর চোখে আঘাত করেছে, নখ উপড়ে দিয়েছে।’ পুলিশ সূত্রে জানা যায়, একটি চুরির ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় ওই যুবককে। ৬ জুলাই যুবকের ৩৫ বছরের বৌদিকে একই চুরির মামলায় তুলে নিয়ে যায় পুলিশ। সেই রাতেই পুলিশি হেফাজতে তার মৃত্যু হয়। মৃত যুবকের বৌদিকে পুলিশ আটদিন আটকের রাখে ও গণধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। ভাইয়ের মৃত্যুর পরও কেন তাঁর স্ত্রীকে ১০ জুলাই পর্যন্ত আটকে রাখা হল? তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন ধর্ষিতা মহিলার স্বামী। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে চুরুর পুলিশ সুপার রাজেন্দ্র কুমার শর্মাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে ও সংশ্লিষ্ট পুলিশকর্মীদের বরখাস্ত করা হয়েছে।

Latest