এটা আবার কেমন স্কুল, জানলে অবাক হবেন!

More articles

উন্নত অনেক দেশের নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ে টিউসন ফি যোগাতে না পেরে ছাত্রীরা দেহ ব্যবসা বেছে নেয়। নৈতিকতার অভাব শুধু নয়, অতিরিক্ত টাকা অথচ কম সময় ও পরিশ্রমের প্রলোভনে পড়ে ছাত্রীরা পার্টটাইম দেহ ব্যবসা বেছে নেয়। অনেকে আর এপথ থেকে সরে আসতে পারছে না। আর এখন কিনা স্কুলের ফি দেওয়ার জন্য দেহব্যবসায় নামছেন ছাত্রীরা! হ্যাঁ, এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে সম্প্রতি। পড়াশোনা চালানোর জন্য পশ্চিম আফ্রিকার সিয়েরা লিয়নের ছাত্রীরা এই রাস্তাই বেছে নিয়েছেন।

কেন তাঁরা এমন একটা রাস্তা বেছে নিতে বাধ্য হলেন? ছাত্রীদের এক জনের কথায়, “এখানে স্কুলের ফি বছরে ৪০ পাউন্ডের মতো। বেশির ভাগ পরিবারই খুব গরিব। এই বিশাল পরিমাণ অর্থ খরচ করে সন্তানদের পড়াশোনা চালাতে হিমশিম খেতে হয় তাদের। তাই এক প্রকার বাধ্য হয়েই এই পথ বেছে নিচ্ছে ছাত্রীরা।”

আফ্রিকার গরিব দেশগুলির মধ্যে সিয়েরা লিয়ন অন্যতম। পড়াশোনা চালানো তো দূর অস্ত, পেট ভরতে গিয়েই পরিবারগুলির লড়াই চালাতে হয় নিরন্তর।

ছাত্রিটি আরও জানিয়েছে, এক রাতে তিনি ৯-১০ পাউন্ড অর্থ উপার্জন করতেন। স্কুলের ফি দিতেও কোনও অসুবিধা হতো না। কিন্তু পরে গর্ভবতী হয়ে পড়ায় স্কুল ছাড়তে হয় তাঁকে।

Latest