ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে আন্তে জেনেনিন কিছু বিশেষ ফলের বীজ সম্পর্কে, বিস্তারিত ভাবে

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আনতে কত জন কত কিছুই না করে থাকেন! তবুও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আসতে চায় না! এজন্য দরকার জীবন-যাপনে পরিবর্তন আনা ও স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া।

প্রাকৃতিক অনেক ভেষজ উপাদান আছে, যেগুলো শুধু ডায়াবেটিস নয়; এমন দীর্ঘমেয়াদী অনেক রোগ প্রতিরোধ করে। তেমনই এক ফল হলো পেয়ারা। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ পেয়ারা স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী।

এ ফলের বীজেও রয়েছে বিশেষ সব পুষ্টিগুণ। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক পেয়ারার বীজে থাকা বিভিন্ন পুষ্টিগুণ যেভাবে দীর্ঘমেয়াদী রোগ থেকে মুক্তি দেয়-

পেয়ারার বীজে পটাশিয়ামের পরিমাণ থাকে কলার তুলনায় ৬০ শতাংশ বেশি। যা শরীরে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে।

এ ছাড়াও পেয়ারায় থাকে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার। কোলেস্টেরলের মাত্রা থাকে খুবই কম। ফলে পেয়ারার বীজ অনেকক্ষণ পেটা ভরা রাখে।

চিকিত্সকরা সাধারণত উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের জন্য পেয়ারা খাওয়ার পরামর্শ দেন। পেয়ারার বীজে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম থাকে যা রক্ত প্রবাহকে নিয়ন্ত্রণ করে এবং রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণ করে।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে পেয়ারা। এতে থাকা ফাইবারের কারণে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়। এটি হজমে উন্নতি করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা কমায়। পেয়ারার বীজ সরাসরি গিলে ফেললেও সমস্যা হয় না।

পেয়ারা বীজে ডায়েটারি প্রোটিন আছে। এটি চিনি এবং চিনির যৌগ ভাঙতে সহায়তা করে এবং মিষ্টি খাবারগুলো সহজে হজম করে।

পেয়ারার বীজে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে, যা দেহে ইনসুলিনের মাত্রা কমায়। পেয়ারা এবং এর বীজ টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য একটি ভালো।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress