জেনে নিন কি ভাবে খুন করা হয়েছে তৃণমূল নেতা দিলীপ রাম কে! পড়ুন সবিস্তারে

0
16

টোটকা24×7 নিউজ ডেস্ক, দেবপ্রিয়া সরকার : সাতসকালে প্রকাশ্য দিবালোকে তিন অজ্ঞাত আততায়ীর গুলিতে খুন হলেন তৃণমূল নেতা। বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে অভিযোগের তির ক্ষেপন। শনিবার সকাল পৌনে ১০টা নাগাদ হুগলির ব্যান্ডেল স্টেশনের পাঁচ নম্বর প্ল্যাটফর্মে ঘটনাটি ঘটে। আহত তৃণমূল নেতা ৩৯ বছরের দিলীপ রাম ব্যান্ডেল গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান ঋতু সিং–এর স্বামী, পেশায় কাঁচরাপাড়া ওয়র্কশপের কর্মচারী।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান অনুযায়ী, প্রতিদিনের মতো শনিবার সকালেও নৈহাটি যাওয়ার উদ্দেশ্যে শিয়ালদা–ইন্টারসিটি ট্রেন ধরার জন্য ব্যান্ডেল স্টেশনের পাঁচ নম্বর প্ল্যাটফর্মের দিকে যাচ্ছিলেন দিলীপ বাবু। দেরি হয়ে যাওয়ায় তিনি রেললাইন টপকে প্ল্যাটফর্মে উঠতে যাচ্ছিলেন। তখনই তিন অজ্ঞাত আততায়ী দিলীপ বাবুর মাথা লক্ষ্য করে গুলি চালায়। ঘটনাস্থল থেকে জিআরপি গিয়ে রক্তাক্ত দিলীপ বাবু উদ্ধার করে চুঁচুড়া ইমামবড়া হাসপাতালে ভর্তি করে। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে কলকাতার হাসপাতালে রেফার করা হয়। সকাল ১১.‌৩০ মিনিট নাগাদ লাইফ সাপোর্ট সিস্টেমের সাহায্যে অ্যাম্বুল্যান্সে করে কলকাতায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল দিলীপ বাবুকে। কিন্তু মাঝপথেই আহতর অবস্থা বেগতিক বুঝে চন্দননগরের একটি নার্সিংহোমে নিয়ে গেলে সেখানের চিকিৎসকরা আহত দিলীপ বাবুকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

চন্দননগর পুলিস কমিশনারেটের কমিশনার অখিলেশ চতুর্বেদী, আইসি নিরুপম ঘোষ, ব্যান্ডেল পুলিস ফাঁড়ির ইনচার্জ দীপশ্রী সেনগুপ্ত সহ জেলা পুলিসের শীর্ষ অফিসাররা ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্ত শুরু করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে সেই সময়ে থাকা প্রত্যক্ষদর্শীদের । জানা যায়, স্থানীয় দুষ্কৃতী লালা পাসোয়ানের ভাই বিজু পাসোয়ান এবং তার সাঙ্গোপাঙ্গোরা দিন সাতেক আগেই দিলীপ বাবুকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছিল , তার জেরেই এই খুন। এই হুমকির কথা দীলিপ বাবু পুলিশকে জানালেও পুলিশ কোন রকম পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এলাকার পঞ্চায়েতে তৃণমূলের যথেষ্ট প্রভাবশালী নেতা ছিল দিলীপ বাবু ।দলের এরূপ সক্রিয় নেতার মৃত্যুর প্রতিবাদে স্থানীয় বিধায়ক রবিবার ২৪ ঘণ্টা চুঁচুড়ায় বন্‌ধের ডাক দিয়েছেন।