গ্রীষ্ম-বর্ষায় চুল নিয়ে সমস্যা, জেনে নিন সমাধান সম্পর্কে

চুল সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। বিশেষ করে মেয়েদের রূপ বাড়িয়ে দেয় কয়েকগুন। এই চুল আবার চিন্তার কারণও হয়ে ওঠে। ছেলে-মেয়ে উভয়ই চুল নিয়ে কিছুটা হলেও শঙ্কায় থাকেন। কেননা চুল ঝরে যাচ্ছে। বর্তমান সময়ে চুল ঝরে যাওয়া একটা সাধারণ ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেক সময় গ্রীষ্মের গরমে চুল শুষ্ক ও রুক্ষ রূপ ধারণ করে এবং বর্ষায় তেলচিটে ভাব দেখা দেয়। এ নিয়েও অনেকের মন খারাপ থাকে। মন খারাপের কিছু নেই, এর সমাধান আপনার কাছেই আছে।

অকালে চুল ঝরে যাওয়ার বেশ কয়েকটি কারণ রয়েছে। এর মধ্যে মাত্রাতিরিক্ত মানসিক চাপ, ব্যাকটেরিয়ার কারণে সংক্রমণ বা অ্যালার্জি, রক্তাল্পতা, আবহাওয়া, অপুষ্টি এবং দূষিত জল অন্যতম। চুলের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করে আবহাওয়া এবং দূষিত জল। ঘরোয়াভাবে কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করলে এই সমস্যা দূর করা সম্ভব।

এবার জেনে নেই চুলের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার পদ্ধতিগুলো :

ডিম আর দুধের মিশ্রণ :

চুল শুষ্ক আর রুক্ষ হয়ে গেলে ডিম আর দুধের মিশ্রণ অত্যন্ত উপকারী। দুটি ডিমের কুসুমের সঙ্গে এক কাপ কাঁচা দুধ, দুই চামচ অলিভ অয়েল এবং দুই চামচ পাতিলেবুর রস মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ মাথায় ভাল করে মাখিয়ে রেখে দিন। পনেরো মিনিট পরে উষ্ণ জলে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত দুই বার এই মিশ্রণ ব্যবহার করলে চুলের শুষ্ক আর রুক্ষ ভাব কেটে যাবে। চুল ঝরার সমস্যাও নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

কলা, মধু আর নারিকেল তেলের মিশ্রণ :

রুক্ষ চুল আর অতিরিক্ত চুল ঝরার সমস্যায় কলা, মধু আর নারিকেল তেলের মিশ্রণ ব্যবহার করতে পারেন। একটি গোটা পাকা কলা চটকে তার সঙ্গে দুই চামচ মধু, এক কাপ কাঁচা দুধ আর দুই চামচ নারিকেল তেল মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এই মিশ্রণ চুলের গোড়া থেকে ডগা পর্যন্ত ভাল করে মেখে ৩০ মিনিটের মতো রেখে দিন। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত দুই থেকে তিন বার এই মিশ্রণ ব্যবহার করে দেখুন। ফল পাবেন অতি দ্রুত।

ওটস, নারিকেলের দুধ আর মধুর মিশ্রণ :

চুলের স্বাস্থ্য ধরে রাখতে আপনি ওটস, নারিকেলের দুধ আর মধুর মিশ্রণ চুলে মাখতে পারেন। এর জন্য এক চামচ ওটসের সঙ্গে দুই চামচ মধু এবং এক কাপ কাঁচা দুধ মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ চুলের গোড়ায় ২০ থেকে ২৫ মিনিট লাগিয়ে রেখে উষ্ণ জলে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে চুলের সমস্যা দূর হবে।

ডিম আর টক দইয়ের মিশ্রণ :

চুল শুষ্ক আর রুক্ষ হয়ে গেলে ডিম আর টক দইয়ের মিশ্রণ অত্যন্ত উপকারী। এর জন্য দুই থেকে তিনটি ডিমের কুসুমের সঙ্গে আধাকাপ টক দই মিশিয়ে নিন। ভাল করে ফেটিয়ে এই মিশ্রণ চুলের গোড়া থেকে ডগা পর্যন্ত মাখিয়ে রাখুন। মিনিট পনেরো পর উষ্ণ জলে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত দুই বার এই মিশ্রণ ব্যবহার করলে চুলের শুষ্ক আর রুক্ষ ভাব কেটে যাবে। চুল ঝরার সমস্যাও নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

ডিমের সাদা অংশ, দুধ আর টক দইয়ের মিশ্রণ :

চুল যদি তেলচিটে হয়ে যায় সে ক্ষেত্রে দুই অথবা তিনটি ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে এক কাপ দুধ আর এক কাপ টক দই মিলিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে নিন। এই মিশ্রণ মাথায় মেখে ৩০ মিনিটের মতো রেখে দিন। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত দুই থেকে তিনবার এই মিশ্রণ ব্যবহার করে দেখুন। ফল পাবেন হাতেনাতে।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress