টাক থেকে বাঁচতে চান? তাহলে স্নানের আগে ও পরে করা এই ভুলগুলো এড়িয়ে চলুন

অনেকেরই দেখা যায় অতিরিক্ত চুল পড়ার কারণে টাক হয়ে যাওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। জানেন কি, আপনার করা ভুলেই প্রতিনিয়ত ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে আপনার চুল।

আপনার স্নান করা বা চুল ধোয়ার পদ্ধতির মাঝেই কিছু ভুল আছে যার কারণে অতিরিক্ত চুল পড়তে আরম্ভ করে। স্নানের আগে ও পরের এই ভুলগুলোর জন্য চুলের ক্ষতি হয়। বিশেষ করে মেয়েদের চুল পড়ার একটি বিশাল কারণ হচ্ছে এই ভুলগুলো। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সেই ভুলগুলো-

১. সবচাইতে বড় যে ভুলটি করি আমরা, সেটি হচ্ছে রোজ চুল ধোয়া। হ্যাঁ, রোজ স্নান করা খুবই জরুরি, কিন্তু রোজ চুল ধোয়া বা চুলে জল লাগানো জরুরি নয়। আপনি দৈনিক কতটা সময় বাইরে থাকেন সেটার ওপরে নির্ভর করে চুল ধোবেন। চুল নোংরা না হলে রোজ চুলে জল লাগানোর কোনো প্রয়োজন নেই। বিশেষ করে যাদের বেশি লম্বা ও ঘন চুল, তারা তো মোটেও এটা করবেন না। এমন চুল শুকাতে সময় লাগে, অনেকটা সময় গোঁড়া ভেজা থাকার ফলে চুল দুর্বল হয়ে যায়।

২. দিনে ২/৩ বার স্নানের অভ্যাস থাকলেও ২/৩ বারই চুল ভেজাবেন না। এতে চুলের ক্ষতি হয় বেশি।

৩. রোজ চুলে শ্যাম্পু করবেন না, সেটা যত ভালো ও দামী শ্যাম্পুই হোক না কেন।

৪. প্রত্যেকবার শ্যাম্পু করার সময় কন্ডিশনার ব্যবহার করা আরেকটি বড় ভুল। আমরা প্রায় সকলেই মনে করি যে, কন্ডিশনার লাগালে চুল ভালো থাকে। এটি আসলে খুবই ভুল একটি ধারণা। কন্ডিশনার লাগালে চুল ভালো থাকে না, বরং সাময়িক একটা নরম ও উজ্জ্বলতা আসে কন্ডিশনারে উপস্থিত রাসায়নিকের কারণে যা মোটেও ভালো নয়। বরং নিয়মিত কন্ডিশনার ব্যবহার করলে চুল পড়ার হার বেড়ে যায় অনেক বেশি।

৫. স্নানের পর পরই ভেজা চুল আঁচড়াতে বসে যাওয়া আরেকটি বড় ভুল। স্নানের পর চুল থাকে নরম ও ভঙ্গুর। এমন সময়ে আঁচড়ালে চুল ভেঙে ও ঝরে যাওয়ার হার বেড়ে যায় অনেক।

৬. স্নানে যাওয়ার আগে বা শ্যাম্পু করার আগে মোটা দাঁতের চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ে নিন। এতে চুলে জট পড়বে না, চুল ভাঙবে না ও ছিঁড়বে না।

৭. তোয়ালে দিয়ে ঘষে ঘষে চুল মোছার অভ্যাস বাদ দিন। এই বাজে অভ্যাসের কারণে চুলের আগা ফেটে যায় ও প্রচুর চুল ঝরে।

৮. স্নানের পর অনেকটা সময় মাথায় তোয়ালে পেঁচিয়ে রাখবেন না। এতে চুলের ওপরে চাপ পড়ে চুল ভেঙে যায়। যত দ্রুত সম্ভব চুল শুকিয়ে ফেলুন।

৯. চুল দ্রুত শুকাবার জন্য হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা বা রোদে বসে চুল শুকানো আরেকটি ভুল অভ্যাস। অতিরিক্ত উত্তাপে চুলের মারাত্মক ক্ষতি হয়। ফ্যানের বাতাসের নিচে চুল শুকানোই উত্তম।

১০. অনেকেই আছে দুপুরে বা রাতে স্নানের পর চুল পুরোপুরি না শুকিয়েই ঘুমিয়ে পড়েন, এই কাজটি মোটেও করবেন না। এতে চুলের গোঁড়া দুর্বল হয়ে যায়।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress