এখন আপনার ত্বকের যত্নে কলার খোসার অবিশ্বাস্য উপকারিতা! জানলে অবাক হবেন আপনিও

চমৎকার পুষ্টিগুণসম্পন্ন কলাতে রয়েছে প্রোটিন এবং প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন। তাছাড়াও এতে রয়েছে তিনটি প্রয়োজনীয় প্রাকৃতিক সুগার: গ্লুকোজ, ফ্রুকটোজ ও সুক্রোজ।

কিন্তু কলা খেলেও ফেলে দেয়া হয় এর খোসা। শুনলে অবাক হবেন যে, কলার খোসার রয়েছে অনেক ওষুধি গুণ। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক এর গুণাগুণ সম্পর্কে-

ব্যথানাশক হিসেবে

ত্বকে কি কোনো বিরক্তি বোধ বা ব্যথা বোধ করছেন? তাহলে কলার খোসা ঘষতে পারেন। এর ব্যবহারে ১০ মিনিটের মধ্যে আপনি ত্বকে ভালো পরিবর্তন দেখতে পাবেন। ব্যথা কমে যাবে।

ত্বকের চিকিৎসায়

খোসার ভেতরের অংশ ব্রণ ও বলিরেখা দূর করতে উপকারি। এটি ত্বককে পরিপূর্ণ পুষ্টি দিতে সাহায্য করে। ক্ষতিগ্রস্ত জায়গায় খোসা দিয়ে আধা ঘণ্টা ঘষতে পারেন, উপকার পাবেন।

আঁচিল দূর করতে

আঁচিল বা জড়ুল থেকে মুক্তি পেতে কলার খোসা ব্যবহার করতে পারেন। এক পিস কলার খোসা আঁচিলের ওপর ব্যান্ডেজের মতো করে বাঁধুন। সারা রাত রেখে দিন। এভাবে কয়েক দিন করলে আঁচিল দূর হয়ে যাবে।

সোরিয়াসিস রোগে

বিশেষজ্ঞরা বলেন, সোরিয়াসিসের মতো কঠিন ত্বকের রোগের প্রতিষেধক হিসেবে কলার খোসা ব্যবহার করা যেতে পারে। ত্বকে এটি ব্যবহার করার ১০ মিনিটের মধ্যে সোরিয়াসিসের লক্ষণগুলো চলে যাবে।

পোকামাকড়ের কামড়ে

এছাড়া পোকামাকড়ের কামড়ে ত্বক ফুলে গেলে বা ত্বকের জ্বালাপোড়া হলে এটি কমাতে কলার খোসা ঘষলে উপকার পাবেন।

সাদা দাঁত

দাঁত সাদা করতে কলার খোসা বেশ উপকারি। নিয়মিত কলার খোসার ভেতরের অংশটি দাঁতে ঘষলে দাঁত হবে আরো সাদা। বিশেষজ্ঞরা জানান, কয়েক সপ্তাহ ব্যবহারে আপনি এর ফলাফল পাবেন।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress