জীবনযাপন

তেতো খাবারের নানান গুণাগুণ, জানা আছে কি?

নিম, করলা, সজনে ডাঁটা বা ফুল— তেতো খাবার বলতে মূলত এগুলোই বোঝানো হয়। তা ছাড়া মেথি, কালমেঘ বা থানকুনিও আছে। সাধারণত গরমের দিনেই তেতো খাওয়ার চল বেশি। তার প্রধান কারণ, এগুলো সব মৌসুমি ফসল। তা ছাড়া গ্রীষ্মকালে রোগের দাপটও বাড়ে। তাই চিকিৎসকদের পরামর্শ ইমিউনিটি বাড়াতে তেতোর স্বাদ নিতেই হবে।

তেতো খাবারের গুণাগুণ সম্পর্কে জেনে নিন—

করলা

করলা এমন একটি সবজি, যা সারা বছর মেলে। এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ, সি, বি কমপ্লেক্স, বিটা কেরাটিন, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রয়েছে। করলায় অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটারি উপাদান আছে যা, ব্লাডে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। এর ফলে হার্ট ভাল থাকে, ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে থাকে। এর মধ্যে থাকা স্যাপোনিনস এবং টারপেনয়েডস এগুলোতে সাহায্য করে। চুল, স্কিন ভাল রাখার জন্যও সহায়ক।

নিম

ত্বক ভাল রাখতে নিম দূর্দান্ত কার্যকরী। এ ছাড়া নিমের মধ্যে রয়েছে আয়রন, অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট, ফাইবার, ফসফরাস। নিমের মধ্যে থাকা আয়রন হিমোগ্লোবিন বাড়াতে সাহায্য করে। এর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রক্ত পরিশোধনে সাহায্য করে।

সজনে ডাটা

সজনে ডাঁটা এবং এর ফুলও উপকারী। এতে ভিটামিন সি, এ, কে, বি আছে। যা ব্লাড সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণে রাখতে, সর্দি-কাশি নিরাময়ে সাহায্য করে।

কালমেঘ এবং থানকুনি

কালমেঘ আর থানকুনি পাতাও অনেক রোগের উপশম করে। এদের মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রক্ত পরিশুদ্ধ করে, ইমিউনিটি বাড়ায়।

Related Articles

Back to top button