জীবনযাপন

এটিএম ব্যবহারে যেসব বিষয়গুলো জানা জরুরি, জেনেনিন

আপনার ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরটি ব্যাংকের সঙ্গে যুক্ত করে রাখুন। এতে যেকোনো লেনদেনের পর এসএমএস অ্যালার্ট পাওয়া যাবে। ফলে পরবর্তী সময়ে কোনো সমস্যা হলে দ্রুত ধরা পড়বে।

আজকাল টাকা তুলতে আর ব্যাংকে যাওয়ার দরকার পড়ে না। সবার দোরগোড়ায় প্রায় প্রতিটি ব্যাংকের বুথ পাওয়া যায়। কেতাবি ভাষায় এগুলোকে ডাকা হয় এটিএম বুথ। এটিএম-এর পূর্ণরূপ হলো- অটোমেটেড টেলার মেশিন।

তবে প্রযুক্তির উন্নতির পাশাপাশি বেড়েছে মানুষের কুপ্রবৃত্তি। তাই এটিএম কার্ড এবং বুথ ব্যবহারের আগে অবশ্যই সাবধান থাকা উচিত। সেন্ট্রাল ব্যাংকের এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, এটিএম ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম রয়েছে। যেগুলো মানলে নিরাপদে লেনদেন করা যায়। কী সেই নিয়ম চলুন দেখে নিই।

পিন নম্বর গোপন রাখুন

প্রতিটি এটিএম কার্ডের একটি নির্ধারিত পিন নম্বর থাকে। এটি ব্যবহার করেই বুথের যাবতীয় কাজ করতে হয়। কোনোভাবেই নম্বরটি কারও সামনে প্রকাশ করবেন না। এমনকি কোথাও লিখে রাখলেও হতে পারে বিপদ! এটি একান্তই নিজের কাছে রাখুন। সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ হলো- নম্বরটি মুখস্থ করে ফেলা এবং প্রতিবছর নম্বরটি পাল্টে নতুন পিন নম্বর নিয়ে নেয়া।

চারপাশে নজর রাখুন

এটিএম বুথে ঢোকার সময় যদি দেখেন এক বা একাধিক মানুষ রহস্যজনকভাবে বুথের আশপাশে ঘুরঘুর করছে, তখন আগে থেকেই সাবধান হয়ে যান। বিশেষ করে রাতের বেলা টাকা তুলতে যাওয়ার সময় এ ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। বুথটি যদি নিরিবিলি জায়গায় হয়, অন্যকোনো সময় বুথ ব্যবহারের চেষ্টা করুন।

প্রস্তুতি

যে কার্ডটি ব্যবহার করবেন তার পিন নম্বর আগে থেকেই মনে রাখার পাশাপাশি কার্ডটি হাতে নিয়ে বুথে প্রবেশ করুন। খেয়াল রাখুন যখন পিন নম্বরটি ব্যবহার করছেন তখন আশপাশে অন্য কেউ আছে কি না।

নিজে কার্ডের ব্যবহারবিধি না জানলে ভালোভাবে জেনে নিন। অন্য কারও কাছে সাহায্য নেয়ার চেষ্টা করবেন না। এতে সহজেই আপনার তথ্য অন্য কেউ জেনে যাবে।

শরীরকে ঢাল বানান

বুথে প্রবেশ করার পর যখন কার্ডটি ব্যবহার করবেন তখন শরীর দিয়ে মেশিনটি আড়াল করে রাখুন। যাতে পেছন থেকে কেউ আপনার তথ্যগুলো না দেখতে পায়।

কাজ শেষ হয়ে গেলেই বেরিয়ে যাবেন না, মেশিনের স্ক্রিনটি যতক্ষণ না আগের অবস্থায় ফিরে যাচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত বুথেই অবস্থান করুন।

রিসিট নিন

টাকা তোলার পর অবশ্যই রিসিট সংগ্রহ করতে ভুলবেন না। এতে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য ভুল হাতে যাওয়া রোধ হবে। পাশাপাশি কোনো সমস্যা দেখা দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া সহজ হবে।

পুরোনো কার্ড

পুরোনো কার্ডটি নষ্ট হয়ে গেলে নতুন কার্ড সংগ্রহ করুন এবং সঙ্গে সঙ্গেই পুরোনোটি নষ্ট করে ফেলুন।

মোবাইল নম্বর

আপনার ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরটি ব্যাংকের সঙ্গে যুক্ত করে রাখুন। এতে যে কোনো লেনদেনের পর এসএমএস অ্যালার্ট পাওয়া যাবে। ফলে পরবর্তী সময়ে কোনো সমস্যা হলে দ্রুত ধরা পড়বে।

কার্ডে পিন নম্বর লিখবেন না

অনেকেই মনে না থাকার কারণে কার্ডেই পিন নম্বর লিখে রাখেন। এটি কোনোভাবেই করা যাবে না। কার্ডটি হারিয়ে গেলে অন্য যে কেউ এটি ব্যবহার করে টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।

Related Articles

Back to top button