চুলের পরিচর্যায় যেভাবে Vitamin-E ক্যাপসুল ব্যবহার করবেন

দিনভর প্রখর তাপদাহ, ধুলোয় ঘোরাঘুরি করার পর ত্বকের যেমন যত্ন নেয়া প্রয়োজন, তেমনই পরিচর্যা চাই চুলেরও। দূষণের জেরে চুল রুক্ষ হয়ে যায়, জেল্লা হারিয়ে যায়, চুল পড়ার সমস্যাও বাড়ে। বার বার পার্লারে গিয়ে চুলের পরিচর্যা করাও সম্ভব নয়। তাই বাড়িতেই নিতে হবে চুলের যত্ন। ভিটামিন ই ক্যাপসুলেই হতে পারে চুলের নানা সমস্যার সমাধান।

চুল পড়া, খুসকি কিংবা পাকা চুলের সমস্যা- ভিটামিন ই ক্যাপসুল ব্যবহার করলেই মিলবে সুফল। যেভাবে এই ভিটামিন ই ক্যাপসুল চুলের ওপর প্রয়োগ করবেন চলুন দেখে নেয়া যাক-

১) ভিটামিন ই ক্যাপসুল ও অ্যালোভেরা জেল: একটি পাত্রে সাত-আটটা ভিটামিন ই ক্যাপসুল কেটে তার থেকে তেল বের করে নিন। সেই তেলের সঙ্গে দুই টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ভালো করে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি চুল ও মাথার তালুতে লাগান। কিছুক্ষণ আপনার আঙুল দিয়ে আলতোভাবে মালিশ করুন। মাস্কটি ৩০-৪০ মিনিটের জন্য রেখে দিন এবং তারপরে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে দু’বার ব্যবহার করা যেতে পারে। চুলের গোড়া মজবুত হবে। চুল পড়ার সমস্যাও কমবে।

২) ভিটামিন ই ক্যাপসুল, ডিম এবং বাদাম তেল: একটি ডিম ভেঙে একটি পাত্রে রাখুন। চারটি ভিটামিন ই ক্যাপসুল থেকে তেল বের করে ডিমের সঙ্গে মিশিয়ে নিন। এক চা চামচ বাদাম তেল নিয়ে মিশ্রণটির সঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে নিন। মাথার ত্বক থেকে শুরু করে সারা চুলে এই মাস্কটি লাগান। এক ঘণ্টা রেখে দিন। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে এক থেকে দু’বার এটি ব্যবহার করতে পারেন।

৩) ভিটামিন ই ক্যাপসুল, দই এবং মধু: একটি পাত্রে অর্ধেক কাপ দই ও দুই চামচ মধু নিয়ে নিন। চারটি ভিটামিন ই ক্যাপসুল থেকে তেল বের করে দইয়ের মিশ্রণের সঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে চুলে লাগান। আধ ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে দু’দিন এটি ব্যবহার করলে খুশকির সমস্যা দূর হবে। চুলের জেল্লাও ফিরে পাবেন।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress