যেসব খাবার খেলে শরীরে রক্তচাপ কমে

উচ্চ রক্তচাপের কারণে স্বাস্থ্যের নানা সমস্যা দেখা দেয়। এটি নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে আরও বড় কোনো সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। যার মধ্যে মস্তিষ্কের ক্ষতি, স্ট্রোক এবং আরও কয়েকটি প্রাণঘাতী রোগ রয়েছে। সুতরাং, কেবলমাত্র একটি স্বাস্থ্যকর এবং সক্রিয় জীবনযাপন করাই গুরুত্বপূর্ণ নয়, পাশাপাশি নজর রাখতে হবে খাবারের তালিকায়ও। চলুন জেনে নেয়া যাক তেমনই কিছু খাবার সম্পর্কে-

কলা
রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে কলা বেশ উপকারী। পটাসিয়ামযুক্ত কলা উচ্চ রক্তচাপের স্তর হ্রাস করতে সহায়তা করে। এটি স্ট্রোকের ঝুঁকিও হ্রাস করে, রক্তনালীগুলিকে শিথিল করতে এবং ধমনীর সুরক্ষায় দক্ষতার সাথে কাজ করতে সহায়তা করে

সবুজ শাক
আয়রন, ফাইবার ম্যাগনেসিয়াম এবং ফোলেট সমৃদ্ধ সবুজ শাক একটি ‘সুপার-ফুড’। এটি পুষ্টিতে ভরা যা হার্টের পক্ষে ভালো। সবুজ শাক রক্তচাপ হ্রাস করতে সহায়তা করে।

মিষ্টি আলু
মিষ্টি আলুতে রয়েছে প্রচুর পটাসিয়াম সামগ্রী যা সোডিয়াম স্তর কম রাখে এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে।

স্কিমড দুধ
পূর্ণ ফ্যাটযুক্ত দুধের বদলে স্কিমড দুধ পান করুন। ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন ডি দ্বারা ভরা এই দুধ রক্তচাপ হ্রাস করতে এবং হাড়কে শক্তিশালী করতে সহায়তা করে। কার্ডিওভাসকুলার রোগের ঝুঁকি কমাতেও স্কিমযুক্ত দুধ উপকারী।

তরমুজ
প্রায় নব্বই ভাগ জলীয় অংশ থাকে তরমুজে। যা স্বাস্থ্যের উন্নতি করে। এটি ফাইবার, ভিটামিন এ, পটাসিয়াম এবং লাইকোপেন দিয়ে সমৃদ্ধ হয়। এগুলো হলো রক্ত-চাপের প্রভাব হ্রাসকারী প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান।

কমলা
আদর্শ রক্তচাপের হার বজায় রাখতে সহায়তা করে কমলা। ভিটামিন সি এবং ফাইবার সমৃদ্ধ এটি উচ্চ রক্তচাপ হওয়ার ঝুঁকিও হ্রাস করে। টাটকা কমলার রস পান করুন বা ফলটি খান, কমলা খেলে উপকার মিলবেই।

বেরি
সব ধরণের বেরি অ্যান্থোসায়ানিনস, ফ্ল্যাভোনোলস এবং পলিফেনলে পূর্ণ থাকে। এছাড়াও এতে ফাইবার, পটাসিয়াম এবং ভিটামিন সি থাকে। তাই এগুলো হৃদযন্ত্রের সুস্থতায় কাজ করে এবং রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখে।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress