গরমে মাইগ্রেনের যন্ত্রণায় কাবু? জেনে নিন সমাধান সম্পর্কে

এপ্রিলের শেষেই গরমে নাজেহাল সবাই। গরমের প্রকোপ যত বাড়বে, ততই গরমের সঙ্গে আসা উপসর্গগুলিও এসে জুড়বে। অতিরিক্ত গরম, প্রখর রোদের তাপে মাইগ্রেনের সমস্যা আরও বাড়িয়ে দেয়। যাদের প্রতিদিন রোদে বের হতে হচ্ছে তারা মাইগ্রেনের সমস্যায় বেশি ভুগছেন। সেই সঙ্গেই গরমের কারণে ঘুম না হওয়া, মানসিক চাপ বেড়ে যাওয়া, ডিহাইড্রেশন আরও গুরুতর করে দেয় মাইগ্রেনের সমস্যাকে।

রোদ থেকে ফিরে একবার মাথার যন্ত্রণা শুরু হলে সহজে সারে না, বরং চোখে ব্যথা, ঘাড়ে ব্যথা, গা বমি ভাব- পরিস্থিতিকে আরও অসহনীয় করে তোলে। মাইগ্রেনের সমস্যা দূর করার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো কেন মাথা যন্ত্রণা হচ্ছে সেই কারণ খুঁজে বের করা। যদি বুঝতে অসুবিধা হয় তা হলে মাইগ্রেন ডায়েরি মেনে চলুন। কোন দিনগুলিতে মাথা যন্ত্রণা হচ্ছে, সে দিনগুলিতে কী খাচ্ছেন, বেশিক্ষণ রোদে থাকছেন কিনা সেগুলি খেয়াল রাখুন।

জেনে নিন গরমে মাইগ্রেনকে যেভাবে বশে রাখবেন

১) শরীরে জলর ঘাটতি হতে দেবেন না: গ্রীষ্মের দিনে ঘামের সঙ্গে প্রচুর মাত্রায় জল শরীর থেকে বের হয়। চিকিৎসকেরা দিনে অন্তত পক্ষে আড়াই থেকে তিন লিটার জল খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। বাইরে বের হলেই নিজের ব্যাগে জলর বোতল রাখতে ভুলবেন না। শরীর খারাপ লাগলেই ছায়ায় বসে অল্প অল্প করে জল খান।

২) খাদ্যতালিকায় নজর রাখুন: খাদ্যাভ্যাসে বদল আনলে মাইগ্রেন নিয়ন্ত্রণ করা যায়। যাদের মাইগ্রেন রয়েছে তাদের কফি, চকলেট, রেড ওয়াইন‌, ড্রাই ফ্রুটস, চিজ জাতীয় খাবারও এড়িয়ে চলাই ভালো। পরিবর্তে বেশি করে ফল ও শাকসবজি খেতে হবে।

৩) টুপি ও রোদ চশমা ব্যবহার করুন: রোদ থেকে বাঁচতে টুপি ও রোদচশমা অবশ্যই ব্যবহার করুন। চোখে সরাসরি সূর্যের আলো পড়লে মাইগ্রেনের ব্যথা আরও বেড়ে যায়। তাই সতর্ক থাকুন।

৪) শীতাতপ যন্ত্রের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখুন: রোদ থেকে বাড়ি ফিরেই গরমের অস্বস্তিবোধ কমাতে শীতাতপ যন্ত্রের তাপমাত্রা অত্যধিক মাত্রায় কমিয়ে রাখেন অনেকে। এই অভ্যাস কিন্তু মোটেও ভালো নয়। এসির তাপমাত্রা ২৫ থেকে ২৭ ডিগ্রিতে মধ্যেই রাখা ভালো। নইলে বাড়তে পারে মাইগ্রেনের ব্যথা।

৫) উপকারী তেল সঙ্গে রাখুন: ইউক্যালিপটাস অয়েল, মিন্ট অয়েল দিয়ে মাথায় মালিশ করলে মাইগ্রেনের ব্যথায় আরাম পাওয়া যায়। পাশাপাশি আরও যে উপসর্গ থাকে, তাও কম হয়।

৬) খালি পেটে থাকবেন না: খালি পেটে থাকলেও মাইগ্রেনের ব্যথা বেড়ে যায়। গরমের দিনে খুব বেশি খেতে ইচ্ছে না করলেও হালকা খাবার কিংবা গোটা ফল সঙ্গে রাখুন।

৭) চিনি খাওয়া এড়িয়ে চলুন: অতিরিক্ত চিনি আছে এমন খাবার এড়িয়ে চলুন। রক্তে চিনির পরিমাণ বাড়লে মাইগ্রেনের ব্যথা বাড়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়। মিষ্টি জাতীয় কিছু খেতেই পারেন মাঝেমাঝে, তবে পরিমাণে কম।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress