বাড়িতে থাকা উপাদান দিয়ে করুন ফেসিয়াল! জেনেনিন প্রদ্ধতি

বাড়িতেই থাকতে হচ্ছে বলে কি নিজের যত্ন নেয়া ছেড়ে দেবেন? দুশ্চিন্তার সময় বলে নিজেকে নিয়ে একদম উদাসীন থাকাও ঠিক নয়। নিতে হবে মুখ ও ত্বকের যত্ন। বাড়িতে কিছুটা সময় নিয়ে নিজেই করে নিন ফেসিয়াল। ব্যাপারটা মোটেই খুব একটা কঠিন নয়। সেজন্য একগাদা জিনিসের দরকার নেই। বরং রান্নাঘরের কয়েকটি সাধারণ উপাদান দিয়েই খুব ভালো ফল পাবেন। ত্বক সতেজ হয়ে উঠবে আর আয়নায় নিজেকে দেখে মনটাও চাঙা লাগবে।

মুখ পরিষ্কার করুন: ফেসিয়ালের প্রথম ধাপ এটি। ত্বকের ধরনের সঙ্গে মানানসই ক্লিনজার বেছে নিন। মুখে হালকা গরমজলের ঝাপটা দিয়ে ভিজিয়ে ক্লেনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন। মুখ পরিষ্কার করতে বেছে নিতে পারেন মধু। মধুর আর্দ্রতা আপনার ত্বক কোমল, নরম রাখবে। ভেজা মুখে মধু লাগিয়ে এক মিনিট মাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। সব ত্বকের পক্ষেই এটি উপযোগী।

এক্সফোলিয়েট করুন: স্বাভাবিক ত্বক হলে এক চা চামচ ওটমিল গুঁড়া করে তার সঙ্গে এক চা চামচ মধু আর এক চা চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে স্ক্রাব বানিয়ে নিন। ত্বক শুষ্ক হলে মধু আর অলিভ অয়েলের সঙ্গে মেশান এক চা চামচ চিনি। আর তৈলাক্ত ত্বকের জন্য মধু আর চিনির সঙ্গে এক চা চামচ জল মেশালেই হলো। মুখে লাগিয়ে কোমলভাবে রগড়ে তুলে দিন যাবতীয় মৃত কোষ।

স্টিম নিন: চওড়া পাত্রে জল ফুটিয়ে নিন। তারপর মাথায় একটা তোয়ালে চাপা দিয়ে জলর পাত্রটার উপর ঝুঁকে পড়ুন যাতে ভাপটা মুখে লাগে। পাঁচ-সাত মিনিট এভাবে ভাপ নিন। ইচ্ছে করলে জলে পছন্দের এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নিতে পারেন, ত্বক বাড়তি সতেজতা পাবে।

ফেস মাস্ক: মাস্কের কাজ হলো ত্বকে পুষ্টি জোগানো। স্বাভাবিক ত্বকে মধু, টক দইয়ের প্যাক, শুষ্ক ত্বকে আধখানা চটকানো পাকা কলা আর মধু, তেলতেলে ত্বকে মুলতানি মাটি আর মধুর প্যাক দারুণ ভালো কাজ করে। সমানভাবে সারা মুখে মেখে আধঘণ্টা চুপচাপ চোখ বন্ধ করে শুয়ে থাকুন। চোখে শসা স্লাইস করে কেটে চাপা দিয়ে রাখতে পারেন, অথবা গোলাপজলে তুলো ভিজিয়ে চেপে রাখুন। ত্বক আর চোখ দুইই স্নিগ্ধ থাকবে। আধঘণ্টা পরে ঠান্ডা জলে মাস্ক ধুয়ে তুলে দিন।

টোনার: আধ চা চামচ অ্যাপল সাইডার ভিনেগারের সঙ্গে এক চা চামচ জল মিশিয়ে তাতে তুলো ভিজিয়ে মুখটা মুছে নিন। অ্যাপল সাইডার ভিনিগার ত্বকের পিএইচ ব্যালান্স অটুট রাখবে। শসার রসও খুব ভালো টোনার, তা ত্বককে স্নিগ্ধও রাখে। অ্যাপল সাইডার ভিনিগার বা শসার রসের বদলে ঠান্ডা বরফজলেও মুখ ধুতে পারেন, কিন্তু তা থেকে বাড়তি উপকার পাবেন না।

ময়েশ্চারাইজার মাখুন: ঘরোয়া ফেসিয়ালের শেষ ধাপ এটি। এমনিতে ত্বকের সঙ্গে মানানসই রেডিমেড ময়েশ্চারাইজার মাখতেই পারেন। আর ঘরোয়া ময়েশ্চারাইজার মাখতে ইচ্ছে করলে স্বাভাবিক ত্বক হলে আধ চা চামচ অলিভ অয়েল বা আমন্ড অয়েল মেখে নিন। শুষ্ক ত্বক হলে মাখুন নারকেল তেল বা আর্গান অয়েল। আর তেলতেলে ত্বক হলে সেক্ষেত্রে আপনার দরকার জোজোবা অয়েল বা এক চা চামচ অ্যালোভেরা জেল।

মনে রাখবেন: ফেসিয়ালের পরপরই মেকআপ করবেন না। ফেসিয়াল করতে বসার আগে সব কিছু হাতের কাছে গুছিয়ে রাখুন যাতে বারেবারে উঠতে না হয়। কোনো উপাদান মেখে জ্বালা বা অস্বস্তি শুরু হলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। আর সবচেয়ে জরুরি, ফেসিয়াল করার সময় মনটা শান্ত রাখুন। ঠান্ডা, শান্ত পরিবেশে ফেসিয়াল করুন। তাতে সুন্দর ত্বকের পাশাপাশি মনেও প্রশান্তি মিলবে।

Related Posts

© 2022 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress