প্রিয়জনের মন ভালো করার উপায় জেনেনিন তা বিস্তারিতভাবে

Written by News Desk

Published on:

ভালোবাসার জন্য সবাই মরিয়া। আর তাইতো প্রেমে পড়লে নারী হোক বা পুরুষ সঙ্গীর ভালোবাসা পাওয়ার চেষ্টায় ব্যাকুল হয়ে ওঠেন। এরপর একে অন্যের প্রতি যত্নবান ও খাপ খাইয়ে নেয়ার চেষ্টায় থাকেন দম্পতিরা।
তবে অনেক সময় দু’জনের মতভেদে সম্পর্কে তৈরি হয় জটিলতা। পুরুষ সঙ্গীর অভিযোগ থাকে প্রেমিকা তাকে বোঝে না আবার নারী সঙ্গেীর অভিযোগ প্রেমিক তার মন বোঝে না! এভাবেই বাড়ে জটিলতা।

এত জটিলতার প্রয়োজন নেই। বরং জেনে নিন কীভাবে নিজের চাহিদা সম্পর্কে সচেতন থেকেও একজন ভালো প্রেমিকা হওয়া যায়-

> ভালো প্রেমিকা হয়ে ওঠার জন্য সবার প্রথম নিজস্ব চাহিদা সম্পর্কে আপনাকে সচেতন হতে হবে। যেটা আপনি পছন্দ করেন না সেটা স্পষ্টভাবে মনের মানুষকে বলতে হবে।

সবসময় হয়তো আপনি যা চাইছেন, তা প্রেমিকের পছন্দের সঙ্গে মিলতে নাও পারে। তবে সবক্ষেত্রেই আপনার চাহিদা অবহেলিত হচ্ছে কিনা, সেদিকে খেয়াল রাখুন। যদি দেখেন দু’জনের চাহিদা একেবারেই মিলছে না, তাহলে সম্পর্কের ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

> দু’জন যতটা পারেন সময় দিন। একঘেয়ে প্রেমের কথা বলতে বলতে ক্লান্ত হয়ে উঠলে ভালো লাগা, মন্দ লাগা একে অপরের সঙ্গে ভাগ করে নিন। কী খেতে, কোথায় বেড়াতে যেতে ভালবাসেন সবকিছুই ভাগ করে নিতে পারেন।

আবার ঠিক তেমনই কোন জিনিসগুলো আপনি ভালবাসেন না, তাও মনের মানুষকে জানিয়ে রাখুন। তার পছন্দ-অপছন্দও জেনে নিতে ভুলবেন না। তাতে দেখবেন দু’জনের সম্পর্কের বাঁধন অনেক বেশি শক্ত হবে।

> সমাজ যতই এগিয়ে যাক না কেন এখনো বহু পুরুষেরই তাদের প্রেমিকাকে দমিয়ে রাখার অভ্যাস রয়েছে। সম্পর্কের শুরু থেকেই বুঝিয়ে দিন আপনি একজন সম্পূর্ণ আলাদা আদর্শে বেড়ে ওঠা মানুষ।

প্রেমিককে বোঝান আপনারও একটা আলাদা জগতে রয়েছে। তাদের সঙ্গে আপনি প্রয়োজনে দেখা করতে পারেন, কথাও বলতে পারেন। তেমনই আবার আপনার মনের মানুষেরও আলাদা জগত থাকাই স্বাভাবিক।

দু’জনেই চেষ্টা করুন কারও ব্যক্তিগত জগতের মধ্যে ঢুকে না পড়ার। তাতেই দেখবেন দিনে দিনে আরও সুন্দর হয়ে উঠবে আপনাদের পথচলা।

Related News