চুমু খেলে ঠিক কি কি রোগ থেকে মুক্তি পেতে পারেন, জেনেনিন বিস্তারিতভাবে

More articles

প্রিয়জনের ঠোঁটে ঠোঁট রেখে হালকা বা গাঢ় চুম্বনের মর্যাদা কোনও দিনই অন্য কিছু দিতে পারে না। টুকটাক মান অভিমান মেটাতে এই হাতিয়ারের জুড়ি মেলাই ভার। বেশি করে চুমু খাওয়ার মাধ্যমে আপনি ও আপনার সঙ্গী থাকতে পারেন সুস্থসবল ও ফিটফাট। সম্প্রতি এক গবেষণায় প্রকাশিত হয়েছে যে, শুধু মানসিক বিষয়ই নয়, ব্যাপক মাত্রায় শারীরিক বিষয়ের সঙ্গে জড়িত রয়েছে চুমু। দেখে নিন চুমুর এমনই কিছু উপকারিতা-

১. প্রতিদিন নিজের সঙ্গীর একটা চুমু, ভালো রাখতে সাহায্য করে আপনার হার্টকে।

২. উচ্চ রক্তচাপ ও অবসাদের মতো একাধিক সমস্যা দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আনতে সাহায্য করে চুমু। চুমুর সময় মস্তিষ্কে ডোপামিন আর সেরোটোনিন হরমোনের ক্ষরণ হতে থাকে, যা মানসিক অবসাদ ও দুশ্চিন্তা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

৩. ইংল্যান্ডের ‘নিউরোসায়েন্স অ্যান্ড কগনিটিভ সায়েন্স’-এর বিজ্ঞানীদের দাবি, চুমু খেলে মস্তিষ্কে এন্ডরফিন নামের এক ধরণের হরমোনের ক্ষরণ হতে থাকে যা শরীরের ব্যাথা বেদনা কমাতে সাহায্য করে। চুমু খেলে মাইগ্রেনের মতো মারাত্মক যন্ত্রণাও সহজেই কমে যেতে পারে।

৪. একটি সমীক্ষায় মার্কিন বিজ্ঞানীদের দাবি, যারা নিয়মিত অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে চুমু খান, তাদের প্রায় ২ থেকে ৩ কিলোক্যালোরি বার্ন হয় প্রতি মিনিটে।

৫. চুমুর সময় মুখের ৩৪টি পেশি এবং ১১২টি পসট্রুয়াল পেশি সক্রিয় হয়ে ওঠে। ফলে ফেসিয়াল পালসি ও মাসকুলার ডিসটোনিয়ার মতো সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনকেটাই কমে যায়।

৬. মুখের স্বাস্থ্য ভালো রাখতেও চুমু অত্যন্ত কার্যকরী। চুমু খাওয়ার সময় মুখের ভিতর অনেকরকম লালা ক্ষরিত হয়, একই সঙ্গে নানারকম উৎসেচকও ক্ষরিত হয়।

Latest