পুজোর আগে দ্রুত ওজন কমাতে যে ব্যায়ামগুলো সহজেই করা যায়

More articles

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ডায়েটের পাশাপাশি ব্যায়াম করা জরুরি। আবার অনেকে দ্রুত শরীরের বাড়তি ওজন কমাতে চান। সেক্ষেত্রে সহজে কিছু ব্যায়াম নিয়মিত করতে হবে। বিশেষজ্ঞদের মতে, অতিরিক্ত ওজন কমানোর জন্য প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে ৩০০ মিনিট শরীরচর্চা করা আবশ্যকীয়।

দৌড়ানো
শরীরে ক্যালোরি বার্ন করার জন্য দৌড়ানো অনেক কার্যকর। প্রতিদিন ৩০ মিনিট করে দৌড়ানো হলে কয়েক দিন পরেই পরিবর্তন লক্ষ করা যাবে। ৩০ মিনিটের মধ্যে প্রথমে আস্তে দৌড়ালেও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এর গতি বাড়াতে হবে। আপনি চাইলে বাইরে বা বাড়িতে ট্রেডমিলে দৌড়াতে পারেন। দৌড়াতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ না করলে হাঁটতে পরেন।

সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা
সিড়ি দিয়ে ওঠানামা শরীরের জন্য ভালো, সে বিষয়ে কমবেশি আমরা সবাই জানি। এতে করে শরীর থেকে যেমন ক্যালোরি বার্ন হবে, তেমনি মাসলেরও ব্যায়াম হবে। পারলে দুই থেকে পাঁচ কেজি ওজনের ডাম্বেল নিয়ে ওঠানামার চেষ্টা করুন।

দড়ি লাফ
অনেকেই কর্মব্যস্ততার কারণে নিয়মিত হাঁটার সময় বা সুযোগ পান না। তাদের জন্য দড়ি লাভ হতে পারে সেরা উপায়। দড়ি লাফের মাধ্যমে দ্রুত ক্যালোরি বার্ন করা যায়। গবেষণা বলছে, ১০ মিনিট হাঁটার চেয়ে দৈনিক ১০ মিনিট দড়ি লাফ দিলে বেশি ক্যালোরি বার্ন করা যায়। এতে পেশিও শক্তিশালী হয়।

সাঁতার
ওজন কমানোর সেরা ব্যায়ামগুলোর মধ্যে সাতাঁর অন্যতম। যাদের হাঁটু বা পিঠে ব্যথা থাকে; বিশেষ করে তাদের জন্য খুবই উপকারী এই অনুশীলনটি। সাঁতারের মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন জয়েন্টগুলো আরও শক্তিশালী হয়। এটি কার্ডিও ওয়ার্কআউট হিসেবে বেশ জনপ্রিয়। গবেষণায় দেখা গেছে, সপ্তাহে ৩-৪ দিন অন্তত আধা ঘণ্টার জন্য সাঁতার কাটলে হৃদরোগ, স্ট্রোক, টাইপ-২ ডায়াবেটিসসহ ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমায়। এ ছাড়াও এটি খারাপ কোলেস্টেরল এবং রক্তচাপ কমায়।

সাইক্লিং
ওজন কমানোর আরও একটি দুর্দান্ত উপায় হলো সাইক্লিং। প্রতিদিন এক ঘণ্টা সাইক্লিং করলে ৪০০-৭৫০ ক্যালোরি পর্যন্ত বার্ন হয়।

পুশ আপ
নিয়মিত পুশ আপ করলে শরীরের প্রতিটি অঙ্গের ব্যায়াম করা হয়। প্রথমে প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে ২০ থেকে ৩০ বা আস্তে আস্তে শরীর বুঝে এর পরিমাণ বাড়াতে হবে।

তবে প্রতিটি ব্যায়ামের আড়াই থেকে তিন ঘন্টা আগে খাওয়া শেষ করতে হবে এবং ব্যায়ামের একটু সময় পর ভারী খাবার খেতে হবে।

Latest