কখন চিকিৎসকের কাছে অবশ্যই যাওয়া উচিত, নাহলে বিপদ আপনারই

More articles

মানুষের শরীরে কখন কীভাবে কোন রোগ বাসা বাঁধবে তা কেউই বলতে পারেন না। তবে বেশিরভাগ সময়ই শরীরে রোগ বাসা বাঁধলেই কোন না কোনো লক্ষণে তা প্রকাশ পায়। কিন্তু এমন অনেক রোগ আছে যা প্রকাশ পেতে বছরের পর বছর সময় লেগে যায়। আর তত দিনে সেই রোগ হয়ে যায় অনিরাময়যোগ্য।

তবে এমন কিছু লক্ষণ আছে, যা অগ্রীম জানিয়ে দেয় আপনার দেহে কঠিন কোনো রোগ বাসা বাঁধতে শুরু করেছে। ‘নাফিল্ড হেলথ’এর বিশেষজ্ঞ ডা. টিম হিপগ্রেভ জানান, বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সারসহ অনেক রোগ শরীরে বাসা বাঁধার পরও দীর্ঘদিন তার কোনো লক্ষণ প্রকাশ পায় না। রোগী তার রোগ সম্পর্কে অবগত হওয়ার আগেই সেটি চলে যায় বিপজ্জনক পর্যায়ে।

এরপর হাজারো চিকিৎসাতেও সেই রোগ সারে না আর। তিনি বলেন, তবে একটু সচেতন হলেই এই বিপদ এড়ানো সম্ভব। শরীরের চারটি লক্ষণেই আগাম রোগ সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায় অনেকখানি। তাই লক্ষণগুলো দেখা দিলেই দেরি না করে খুব দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

❏ জেনে নিন কী সেই লক্ষণগুলো:

# কাজ করার ক্ষমতা আস্তে আস্তে কমতে থাকলে বা শরীরে দুর্বলতা দেখা দিলেই বুঝবেন কোনো রোগ বাসা বাঁধতে চলেছে।

# চোয়ালব্যথা বা দাঁত কিড়মিড় করা, মাথাব্যথা, দাঁতের সমস্যা— ইত্যাদিও বড় কোনো রোগের লক্ষণ হতে পারে। তাই এসব সমস্যা দেখা দিলেই দেরি না করে চিকিৎসকের কাছে যাওয়া উচিত।

# প্রায়ই সর্দি-জ্বরের মতো ছোটখাটো কোনো অসুখে ভুগছেন, অর্থাৎ শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেছে? তাহলে অবহেলা না করে অবশ্যই চিকিৎসকের কাছে যান।

# হঠাৎ করেই প্রতিদিনের খাদ্যাভ্যাস বদলে গেছে আপনার? কিংবা ক্ষুধা খুব বেড়ে বা কমে গেছে? তাহলে দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কারণ অনিচ্ছাকৃত খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন মানে পেটের বড় কোনো অসুখের ইঙ্গিত।

Latest