বাদাম খেয়েছেন তো? এর উপকারিতাগুলো জানলে অবাক হবেন

More articles

স্বাস্থ্য সচেতনরা দৈনিক বাদাম খান। অবসর সময় গরম গরম বাদাম ভাজা খেতে কে না পছন্দ করেন! ওজন কমানো থেকে শুরু করে ডায়াবেটিসসহ নানা রোগ বশে রাখার কার্যকরী এক খাবার হলো বাদাম।

এক মুঠো বাদাম বড় খিদের ছোট সমাধান। সব সময় সঙ্গেও রাখা যায় বাদাম, আবার সহজলভ্যও বটে। ঠিক যেমন চিনাবাদাম সব জায়গায় পাওয়া যায়, আবার এটি দামেও সস্তা। তবে এর উপকারিতা কিন্তু অনেকে।

জানলে অবাক হবেন, বাদাম নাম হলেও চিনাবাদাম অনেকটা শিমের মতো। চিনাবাদাম আসলে শিমজাতীয় বীজ। চিনাবাদাম মাটির নীচে জন্মায়।

প্রায় ৩৫০০ বছর আগে দক্ষিণ আমেরিকায় চিনাবাদামের উৎপত্তি ঘটে। ১৭০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দের দিকে উত্তর আমেরিকায় চিনাবাদাম সবার কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। তখনও চিনাবাদাম বাণিজ্য শুরু হয়নি।

আমেরিকার বিখ্যাত পি.টি.বার্নামের উদ্যোগে তার সার্কাস অনুষ্ঠানে প্রথম চিনাবাদাম ভাজা বিক্রি শুরু হয়। এরপর থেকে স্ন্যাকস হিসেবে চিনাবাদামের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পায়।

পি.টি.বার্নামের উদ্যোগে বিভিন্ন বেসবেল গেমের সময়ও বিক্রি করা হতো বাদাম। তখনও আমেরিকানরা অবসর কাটাতে বেসবল গেম খেলা দেখতেন।

১৯০৪ সালে সেন্ট লুইস ওয়ার্ল্ডস মেলায় পিনাট বাটার বিক্রি শুরু হয়। তখন থেকেই শুরু। এরপর চিনাবাদাম বাণিজ্যিকভাবে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ে। এখন প্রায় সবদেশেই চিনাবাদাম উৎপাদন করা হয়।

বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চিনাবাদাম খামারের মূল্য প্রায় এক বিলিয়ন ডলারেরও বেশি। এটি খুব লাভজনক একটি ব্যবসা।

চিনাবাদাম কেন খাবেন?

>> চিনাবাদামে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, কার্বো-হাইড্রেট ও প্রোটিন আছে। প্রতিদিন এক মুঠো চিনাবাদাম খেলে শরীর অনেক অসুখ থেকে বাঁচবে।

>> শরীরের মাত্রাধিক কোলেস্টেরল হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, ওজন বৃদ্ধি ও ডায়াবেটিস এর মতো কঠিন রোগ সৃষ্টি করে। চিনাবাদামের অসাধারণ কার্যকরী ফ্যাট শরীর থেকে কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে।

>> এই বাদাম শরীরের চর্বি কমাতেও সাহায্য করে। প্রতিদিন একমুঠো চিনাবাদাম খেলে পেটও দীর্ঘক্ষণ ভরা থাকবে আবার ওজনও কমবে।

>> রাতে ১০-১৫টি বাদাম জলে ভিজিয়ে রেখে সকালে খেলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে। চিনাবাদামের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ডায়াবেটিস নির্মূলে বিশেষভাবে কার্যকরী।

>> চিনা বাদামে প্রচুর পরিমাণ বি ৩ আছে। যা মস্তিষ্কের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করে। প্রতিদিন চিনাবাদাম বা এর মাখন খেলে মস্তিস্কের স্বাস্থ্য ভালো থাকে।

>> শরীরে সঠিক পরিমাণ পুষ্টি না থাকলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। চিনাবাদামের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট শরীরে কঠিন রোগকে বাসা বাধতে বাঁধা দেয়। তাই প্রতিদিন চিনাবাদাম খেয়ে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ান।

>> এছাড়াও ক্যানসারের মতো রোগ দূরে রাখে বাদাম। এতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ক্যানসারের কোষকে বেড়ে উঠতে দেয় না। পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

>> চিনাবাদামে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট শরীরের অ্যাক্সিডেটিভ স্ট্রেস কমিয়ে কোষদের ক্ষত রোধ করে। একইসঙ্গে ত্বকের বয়স কমাতেও সাহায্য করে থাকে।

>> হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায় চিনাবাদাম। বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, বাদামে উপস্থিত ফসফরাস শরীরে প্রবেশ করার পর এমন কিছু কাজ করে যার প্রভাবে হাড়ের ক্ষমতা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে।

Latest