চাইলেই বেঁচে থাকা যাবে ১৫০ বছর! কীভাবে সম্ভব? গবেষণা কী বলছে জানুন

More articles

সুন্দর এই পৃথিবীতে কে-ই বা আর মরতে চায়। সকলেই চায় দীর্ঘ আয়ু পেতে। কিন্তু চাইলেই কি আর সবটা পাওয়া যায়? দীর্ঘ জীবন কি আর এমনিই পেয়ে যাবেন? যদি বলি তা সম্ভব। চাইলেই বেঁচে থাকতে পারবেন ১৫০ বছর! অন্তত গবেষণা তো তাই বলছে! মানুষ সর্বোচ্চ কত দীর্ঘায়ু লাভ করতে পারে? কী কী করলে তা পাওয়া সম্ভব? তা জানার চেষ্টায় সম্প্রতি গবেষণায় মেতেছিলেন একদল বিজ্ঞানী। সেখানেই উঠে এল এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য।

 

সম্প্রতি সিঙ্গাপুরের একদল বৈজ্ঞানিক সর্বাধিক বয়স মাপার জন্য বিশেষ ইন্ডিকেটর্স তৈরি করেছে। যার নাম ডায়নামিক অর্গ্যানিজম স্টেট ইন্ডিকেটর। তা থেকে জানা যায়, একজন মানুষ সর্বোচ্চ কত বছর পর্যন্ত বাঁচতে পারেন। তবে তার জন্য বিশেষ ধরনের রক্ত পরীক্ষা প্রয়োজন। ওই পরীক্ষায় রক্তে উপস্থিত শ্বেত কণিকা, লোহিত কণিকা এবং প্লেটলেট বা অনুচক্রিকা-র পরিমাণ হিসেব করা হয়। আপনার শরীরের ডায়নামিক অর্গ্যানিজম স্টেট ইন্ডিকেটরের স্কোর একশো পেরোলেই কেল্লাফতে। দীর্ঘ জীবন লাভ করতে পারবেন আপনি।

অন্যদিকে, ডায়নামিক অর্গ্যানিজম স্টেট ইন্ডিকেটরের স্কোর যত কম হবে, সেই নির্দিষ্ট মাপকাঠি অনুয়ায়ী তত কম বছর বাঁচবেন মানুষ। সাধারণ রোগে মানুষের শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা কেমন কাজ করে তা এই স্কোরের ভিত্তিতে জানা যেতে পারে। এই স্কোর রেট ঠিকঠাক হলেই দীর্ঘ জীবন পাবেন আপনি। ১৫০ বছর পর্যন্ত বাঁচাও অসম্ভব কিছু নয়। সম্প্রতি ব্রিটেন, আমেরিকা ও রাশিয়ার অনেক মানুষকে নিয়ে সমীক্ষার ভিত্তিতেই এ কথা ঘোষণা করা হয়েছে। যদিও এই স্কোর রেট সঠিক রাখা কীভাবে সম্ভব হতে পারে তার জন্য এখনও দীর্ঘ গবেষণা চলছে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ‘নেচার কমিউনিকেশন’ নামক এক জার্নালে প্রকাশিত গবেষণা পত্রে বলা হয়েছে, মানুষের আয়ু ১২০-১৫০ বছর পর্যন্ত হতে পারে। মৃত্যু হল একটি জৈবিক প্রক্রিয়া। যখন বার্ধক্য আসে, তখন শরীরে নানারকম বদল আসে। রক্তকোষেও একাধিক পরিবর্তন হয়। বয়স বাড়লে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ক্রমশ কমতে থাকে মানুষের। ফলে আয়ুও কমে আসে। এবার ডায়নামিক অর্গ্যানিজম স্টেট ইন্ডিকেটরের মাধ্যমেই কতদিন বাঁচবেন তা জানা যেতে পারে।

Latest