অ্যালার্জি থেকে রক্ষা পেতে যা করলে মিলবে উপকার

More articles

অ্যালার্জির সমস্যা খুবই সাধারণ একটি সমস্যা। কমবেশি সকলেই এই সমস্যায় ভুগে থাকেন। হাজারো ওষুধ খেলেও এই সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়া যায় না। অ্যালার্জি প্রতিক্রিয়া থেকে মুক্তি পেতে তাই ভরসা রাখতে হয় বিভিন্ন ওষুধে।

জানেন কি ঘরোয়া উপায়েও অ্যালার্জি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ৫ তেল ব্যবহারের মাধ্যমে আপনি অ্যালার্জির সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে পারেন।

ল্যাভেন্ডার অয়েল:
ল্যাভেন্ডার অয়েল শরীরের বিভিন্ন প্রদাহ দূর করে। একইসঙ্গে দুশ্চিন্তা ও অনিদ্রার সমস্যার সমাধান ঘটায়। এক গবেষণায় নিশ্চিত করা হয়েছে, ল্যাভেন্ডারের তেল অ্যালার্জির প্রদাহ ও শ্লেষ্মা দূর করতে পারে।

অ্যালার্জির সমস্যা সমাধানে ল্যাভেন্ডার অয়েল হালকা করে আপনার শরীরে ম্যাসাজ করুন। এছাড়াও আপনার স্নানের জলে কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অয়েল মেশাতে পারেন।

পেপারমিন্ট অয়েল:
পুদিনা পাতা থেকে তৈরিকৃত পেপারমিন্ট অয়েলের স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক। পেপারমিন্ট অয়েলে থাকা অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে।

এই তেল অ্যালার্জির পাশাপাশি সর্দি, কাশি, সাইনোসাইটিস, হাঁপানি ও ব্রঙ্কাইটিস থেকে মুক্তি দেয়। যে কোনো প্রদাহ কমাতে দিনে অন্ত একবার ১-২ ফোঁটা পেপারমিন্ট তেল নাক দিয়ে টেনে ব্যবহার করুন।

লেমন অয়েল:
লেবুর তেল সাইনাস পরিষ্কার করতে, নাক বন্ধভাব খুলতে ও মৌসুমী অ্যালার্জির সাধারণ লক্ষণসমূহ সারায়। এই তেল লিম্ফ্যাটিক সিস্টেম পরিষ্কার করে ও শ্বাসযন্ত্রের বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

টি ট্রি অয়েল:
ত্বকের নানা ধরনের সমস্যায় টি ট্রি অয়েল বেশ কার্যকরী। অ্যান্টি-ফাঙ্গাল, অ্যান্টি-ভাইরাল ও অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল গুণসমৃদ্ধ এই তেল ত্বকের অ্যালার্জির চিকিৎসার জন্য উপযুক্ত। তবে সবার জন্য এই তেল উপযুক্ত নয়। তাই এটি ব্যবহারের আগে স্কিন প্যাচ পরীক্ষা করুন।

টি ট্রি অয়েল কখনও খাবেন না। এটি বাহ্যিক ব্যবহারের জন্য। একটি পরিষ্কার কটন প্যাডে এই তেল ২-৩ ফোঁটা নিয়ে ত্বকের বিভিন্ন র্যাশ, লালচে ও ফোলাভাব এমন স্থানে ব্যবহার করুন।

ইউক্যালিপটাস তেল:
মৌসুমী অ্যালার্জি থেকে মুক্তি দেয় এই তেল। ইউক্যালিপটাস তেল ফুসফুস ও সাইনাসের জমাট বাঁধা দূর করে। এর ফলে অ্যালার্জির লক্ষণ দ্রুত কমে। তবে কারও কারও ক্ষেত্রে এটি অ্যালার্জির সৃষ্টি করতে পারে। তাই ত্বকে ব্যবহারের আগে প্যাচ পরীক্ষা করুন।

Latest