গরমে দই খেলে কি সত্যিই শরীর ঠান্ডা থাকে?

Written by News Desk

Published on:

গরমে পেট ঠান্ডা রাখতে অনেকেই দই বা লাচ্ছি খান। পেট ঠান্ডা রাখতে ও খাবার হজম করতে দই খুবই উপকারী, এ বিষয়ে কমবেশি সবাই জানেন। তবে গরমে দই খাওয়া কতটা স্বাস্থ্যকর? এতে শরীরের উপকার হয় না ক্ষতি?

জানলে অবাক হবেন, খাবার দ্রুত হজম করতে সাহায্য করে টকদই। এর মধ্যে আছে প্রচুর প্রোবায়োটিক। এগুলো পেটের মধ্যে থাকা ভালো ব্যাকটেরিয়াগুলোর মতোই পুষ্টিগুণে ভরপুর। এর ফলে খাবার দ্রুত হজম হয়।

এছাড়া দইয়ের মধ্যে বেশ কয়েকটি মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট পাওয়া যায়। এই তালিকায় আছে প্রোটিন, ফ্যাট, কার্বোহাইড্রেট ও বেশ কয়েকটি ভিটামিন। এগুলি শরীরে পুষ্টি জোগায়।

দই খেলে রাতে ভালো ঘুম হয় কারণ এর মধ্যে আছে ক্যালসিয়াম ভিটামিন বি৫ ভিটামিন বি১২ ম্যাগনেসিয়াম। এই উপাদানগুলো অনিদ্রার সমস্যা দূর করে।

এমনকি টকদই ত্বকের জন্যও উপকারী। কারণ এর মধ্যে ভিটামিনের পরিমাণ বেশি। এছাড়া দইয়ের ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বককে এক্সফোলিয়েট করে। যা ত্বকের সমস্যা দূর করে।

গরমে দই খেলে কী হয়?

দই শরীরের একাধিক উপকারে লাগলেও এটি পেট ঠান্ডা করে না। বরং গরম করে দেয়। কারণ পেটের মধ্যে একেই উষ্ণতা শরীরের বাইরের দিকের থেকে বেশি থাকে।

এই অবস্থায় পেটের মধ্যে দই পড়লে সন্ধান অর্থাৎ ফার্মেন্টেশন প্রক্রিয়া শুরু হয়। এর ফলে পেট আরও গরম হয়ে যায়। তাই গরমকালে দই খেলেও বুঝেশুনে খাওয়াই ভাল। নয়তো অতিরিক্ত পেট গরম থেকে শরীর খারাপ লাগতে পারে।

দইয়ের বদলে পেট ঠান্ডা রাখতে খেতে পারেন তরমুজ ও শশা। পেট ঠান্ডা রাখার জন্য দইয়ের বদলে বেছে নিতে পারেন তরমুজ। খাওয়ার পরেই এটি পাতে রাখুন। তরমুজ পেট ঠান্ডা রাখার পাশাপাশি হাইড্রেট করে।

শশাও একইভাবে পেট ঠান্ডা করে। কারণ শশার মধ্যে প্রচুর পরিমাণে পানি থাকে। এটি ডিহাইড্রেশনের ভয়ও দূর করে।

Related News