সঠিক পুষ্টি পেতে নিত্যদিনের খাদ্যতালিকায় রাখুন এই সব খাবার, দেখেনিন

Written by TT Desk

Published on:

আমাদের প্রায় সবারই একটির সঙ্গে অন্য খাবার মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যাস আছে। এই অভ্যাস অনেকের ক্ষেত্রে আবার অদ্ভুত। যেমন কেউ হয়তো পিনাট বাটার আর জ্যাম একসঙ্গে মিশিয়ে খান, কেউ আবার পটেটো চিপসের সঙ্গে চাটনি খেতে ভালোবাসেন। মূলত আমরা সেসব খাবারই একসঙ্গে খেতে পছন্দ করি, যেগুলোর স্বাদ আমাদের কাছে ভালোলাগে।

যখন পুষ্টির বিষয়টি সামনে আসে, আমাদের শরীর আমাদের মুখের স্বাদ অনুযায়ী চলে না। শরীরে সঠিকভাবে পুষ্টি পৌঁছাতে চাইলে সঠিক খাবার একসঙ্গে খাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। শরীরের অভ্যান্তরীণ কাজ ঠিক রাখতে এবং সুস্থভাবে বাঁচতে চাইলে সঠিক পুষ্টি গ্রহণ করা জরুরি। প্রয়োজনীয় পুষ্টি পেতে খাবারের ৫ ধরনের সমন্বয় সম্পর্কে জেনে নিন-

ভিটামিন সি ও আয়রন

উদ্ভিদ জাতীয় খাবার থেকে আয়রন শোষণ করার জন্য অবশ্যই তার সঙ্গে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে। ভিটামিন সি উদ্ভিদ জাতীয় খাবারের আয়রন সহজে ভাঙতে পারে। ফলে আমাদের শরীর খুব সহজেই এটি গ্রহণ করতে পারে। তাই আয়রনের ঘাটতি মেটানোর জন্য পালংশাকের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে খেতে পারেন।

ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন সি

এই দুই পুষ্টি উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে খাওয়া খুবই পরিচিত অভ্যাস। এমনকী চিকিৎসকেরাও ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ ওষুধ একসঙ্গে খাওয়ার পরামর্শ দেন। এই দুই পুষ্টি উপাদান একসঙ্গে যোগ হলে তা আমাদের হাড় শক্ত ও স্বাস্থ্যকর রাখতে কাজ করে। প্রয়োজনীয় ক্যালসিয়াম গ্রহণ করতে চাইলে তার সঙ্গে অবশ্যই ভিটামিন ডি মিশিয়ে খেতে হবে। যদিও সূর্য্যের আলো ভিটামিন ডি এর সবচেয়ে ভালো উৎস, তবে কিছু খাবারে ভালো পরিমাণ ভিটামিন ডি রয়েছে। যেমন চিজ, ডিমের কুসুম ইত্যাদি। তাই সুস্থ ও ফিট থাকার জন্য আপনাকে অবশ্যই এই দুই পুষ্টি উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে খেতে হবে।

টমেটো ও স্বাস্থ্যকর ফ্যাট

টমেটোতে আছে লাইকোপেন নামক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, যা অসুখ-বিসুখের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে। এতে আরও আছে ক্যান্সার-বিরোধী উপাদান। টমেটো থেকে পর্যাপ্ত পুষ্টি গ্রহণ করতে চাইলে এর সঙ্গে স্বাস্থ্যকর ফ্যাট যেমন অলিভ অয়েল বা অ্যাভাক্যাডো মিশিয়ে খেতে হবে।

হলুদ ও গোল মরিচ

আমাদের প্রায় সবার রান্নাঘরেই থাকে হলুদ নামক মসলা। হলদে রঙের এই মসলায় থাকে প্রচুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান। হলুদ খেলে তা বাতের ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে। সেইসঙ্গে এটি কিডনি ভালো রাখতেও কাজ করে। যখন এই মসলা গোল মরিচের সঙ্গে যোগ হয় তখন এর উপকারিতা আরও বেড়ে যায়। যে আমাদের জন্য আরও বেশি স্বাস্থ্যকর। তাই সুস্বাস্থ্য ধরে রাখতে হলুদ ও গোল মরিচ একসঙ্গে মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করুন।

শস্য ও বেরি জাতীয় ফল

আপনি হয়তো অনেককেই বেরি জাতীয় ফলের সঙ্গে ওটমিল মিশিয়ে খেতে দেখে থাকবেন। এটি যে কেবল একসঙ্গে মিশিয়ে খেতে ভালোলাগে বলেই খায়, তা কিন্তু নয়। পুষ্টি গ্রহণের ক্ষেত্রেও এই দুই খাবার মিশিয়ে খাওয়া লাভজনক। বেরি জাতীয় ফলে থাকে পর্যাপ্ত ফাইবার এবং শস্য জাতীয় খাবারে থাকে প্রচুর আয়রণ ও ভিটামিন বি। এই দুই জাতীয় খাবার একসঙ্গে খাওয়া শরীরের জন্য ভালো। বেরি জাতীয় ফল খেলে তা পুষ্টি শোষণ ও ভালো হজমে শরীরকে সহায়তা করে।

Related News