December 5, 2023 | 12:11 AM

আদায় রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম এবং ফসফরাসের মতো প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও খনিজ উপাদান, যে কারণে মাথার ত্বকে পুষ্টি জোগাতে এবং চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করতে পারে। আদা চুলের ক্ষতি হওয়া আটকায়। এছাড়াও, আদার রসে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি এবং অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক করে তুলতে সাহায্য করে। ফলে স্ক্যাল্পে যদি আদার রস লাগানো যায় সেক্ষেত্রে হেয়ার ফলিকল পুষ্টি পায় এবং নতুন চুল গজায় ও চুল তাড়াতাড়ি লম্বাও হয়। চলুন জেনে নেওয়া যাক, চুলের পরিচর্যায় কী ভাবে আদার রস ব্যবহার করবেন –

আদার রস

আদার রস বার করে স্ক্যাল্পে লাগান ভাল করে। শুধুমাত্র স্ক্যাল্পেই লাগাবেন, ভুলেও চুলে লাগাবেন না। আধ ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন। সপ্তাহে তিন বার এই পদ্ধতি প্রয়োগ করতে পারেন। আপনি চাইলে আদার রসে একটু জল মিশিয়ে পাতলা করে নিতে পারেন। আদার রস স্ক্যাল্প এবং চুল উভয়ই ভাল রাখে।

আদার রস, অলিভ অয়েল এবং লেবুর রস

একটা বাটিতে ২ টেবিল চামচ আদার রস, ৩ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল এবং আধা চা চামচ লেবুর রস নিয়ে মেশান ভাল করে। মিশ্রণটি স্ক্যাল্পে লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে দিন। তারপর শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে ১-২ বার এটি করতে পারেন।

আদার রস, নারকেল তেল এবং রসুন

এক চা চামচ আদার রস, ৪ চা চামচ নারকেল তেল, ৩টি রসুনের কোয়া থেঁতো, ৬ চা চামচ নারকেল দুধ, ২ চা চামচ মধু একসঙ্গে মিশিয়ে স্ক্যাল্পে লাগান। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে একবার এটি করলেই ভাল ফল পাবেন।

আদার রস এবং তিলের তেল

তিলের তেল মাথার ত্বকে পুষ্টি যোগায়। ৪ টেবিল চামচ আদার রসের সঙ্গে ২ টেবিল চামচ তিলের তেল মেশান ভাল করে। মিশ্রণটি স্ক্যাল্পে লাগিয়ে দুই ঘণ্টা রাখুন। তারপর শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন। এই প্রতিকারটি সপ্তাহে দুই বার করুন।