সাবধান আজ থেকেই অন্ধ হতে না চাইলে এসব কাজ শুরু করে দিন

গত কয়েক দশকে ৪০-এর কম বয়সীদের ক্ষেত্রে নানাবিধ চোখের রোগের প্রকোপ মারাত্মকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। আর দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়ার মতো সমস্যা তো আজ দশ জনের মধ্যে ৮ জনের। বিশেষত ভারতীয়দের মধ্যে। পরিস্থিতিটা কিন্তু আরও ভয়ঙ্কর। কারণ সরকারি পরিসংখ্যান বলছে ২০১৮ সালে সারা বিশ্বে অন্ধ লোকের সংখ্যা ছিল প্রায় ৩৯মিলিয়ান, যার মধ্যে ১৫.৮ মিলিয়ানেরই বাস আমাদের দেশে।

তবে এই চোখের সমস্যা থেকে বাঁচারও উপায় আছে। আগের থেকে সাবধান হওয়া আর কিছু ব্যবস্থা নিলেই এড়ানো যায় এই সমস্যা। চোখের ব্যায়ামগুলি নিয়মিত করলে দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটতে সময় লাগে না, সেগুলি হল…

জুমিং এক্সারসাইজ: এই ব্যায়ামটা যতটা মজার, ততটাই কার্যকরিও বটে। এক্ষেত্রে কারও লিফ্ট চাওয়ার সময় আমরা যেমন হাতের ভঙ্গি করে থাকি, অনেকটা তেমন করতে হবে। অর্থাৎ ডান হাতটা সামনের দিতে সোজা করে বুড়ো আঙুলটা ডান অথবা বাম দিতে একটু হেলিয়ে দিতে হবে। তারপর বুড়ো আঙুলের উপর ফোকাস করতে হবে। এইভাবে কিছুক্ষণ করার পর হাতটা মুখ থেকে ৩ ইঞ্চি দূরে নিয়ে আলতে হবে। কিছু সময় পরে পুনরায় হাতটা সোজা করে নিতে হবে এবং একেবারে শুরুর সময়ে যেমন করেছেন সেই ভাবে ফোকাস করতে হবে। এই পদ্ধতিটি মেনে নিয়মিত এই ব্যায়ামটা করলে দেখবেন দৃষ্টি শক্তি বাড়বে চোখে পরার মতো। সেই সঙ্গে নানাবিধ চোখের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও যাবে কমে।

ঠান্ডা-গরম জলে সেক দিন : একটা বাটিতে গরম জল আর আরেকটা বাটিতে ঠান্ডা জল নিয়ে নিন। তারপর একটা টাওয়াল গরম জলে ডুবিয়ে কিছু সময় চোখের উপর রাখুন। তরপর জল দিয়ে একই ভাবে চোখে সেক দিন। এমনটা কয়েক মিনিট করলে সারা দিন ধরে কাজ করতে করতে চোখের যে ক্ষতি হয়েছে, তা ঠিক হতে শুরু করবে।

বারে বারে চোখ পিটপিট করতেই হবে: বেশ কিছু স্টাডিতে দেখা গেছে কম্পিউটার, মোবাইল বা যে কোনও ডিজিটাল স্ক্রিনে কাজ করার সময় আমাদের চোখের পাতা একেবারেই পরতে চায় না। ফলে চোখের উপর চাপ বাড়তে শুরু করে। সেই কারণেই তো যারা দিনের বেশিরভাগ সময় কম্পিউটারে কাজে করেন, তাদের কিছু সময় অন্তর অন্তর চোখ পিট পিট করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা।
ফোকাস শিফটিং এক্সারসাইজ করা জরুরি: চোখের পেশির ক্ষমতা বাড়াতে এই ব্যায়ামটি দারুন কাজে আসে। এক্ষেত্রে চোখের একেবারে সামনে যে বস্তুটি আছে তার দিকে তাকান। ৫ সেকেন্ড তাকিয়ে থাকার পর তার থেকে একটু দূরে রয়েছে এমন কিছুর দিকে এক দৃষ্টিতে পুনরায় ৫ সেকেন্ড তাকিয়ে থাকুন। এমনটা করতে থাকলে চোখের পেশির কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। আর এমনটা হলে স্বাভাবিকভাবেই দৃষ্টিশক্তিও বাড়তে শুরু করে।

হাতের তালু দিয়ে চোখ ঢাকুন: খুব ব্যস্ত নাকি কম্পিউটারে। তাহলে বন্ধু একটু সময় বার করে কয়েক মিনিট হাতের তালুটা চোখের উপর রাখুন দেখি! তবে চোখের উপর চাপ দেবেন না যেন! এমনটা কয়েক মিনিট করে রাখলেই দেখবেন মন এবং চোখের স্ট্রেস কমতে থাকবে। সেই সঙ্গে চোখের ক্লান্তিও দূর হবে।

গোল কোল করে ঘোরাতে হবে চোখের মণি: আপনি কি চান বয়স বাড়লেও চোখ তরতাজা থাকুক? তাহলে বন্ধু দিনের মধ্যে কম করে ২ মিনিট খরচ তো করতেই হবে! আর এই দু মিনিটে করবেন কী? তেমন কিছু না! প্রথমে ঘড়ির কাঁটার দিকে এবং তারপর ঘড়ির কাঁটার বিপরীতে চোখের মণিকে ঘোরাতে হবে। তবে পুরো ব্যায়ামটা খুব ধীরে ধীরে করবেন। এমনটা প্রতিদিন ২-৩ মিনিট করলেই দখবেন দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটতে শুরু করেছে। সেই সঙ্গে মনযোগও বৃদ্ধি পাবে।

Related Posts

© 2023 Totka24x7 - Theme by WPEnjoy · Powered by WordPress